বিদেশি রোগী নিতে চাচ্ছে না সিঙ্গাপুর

  করোনা ভাইরাস

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতাল, ছবি: সংগৃহীত

সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতাল, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিঙ্গাপুরের সরকারি ও বেসরকারি সব হাসপাতালের সব চিকিৎসক এবং বেসরকারি বিশেষায়িত ক্লিনিকগুলোকে ওই দেশে বসবাসকারী নয় এমন নতুন বিদেশি রোগী দেখা বন্ধ করাসহ কিছু নির্দেশনা মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে নেওয়া পদক্ষেপের অংশ হিসেবে সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এ পরামর্শ দিয়েছে।

বর্তমানে বিদেশি রোগীদের নিজ দেশে চিকিৎসা নিতে উৎসাহিত করারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক বেসরকারি ও পাবলিক স্বাস্থ্যসেবা সংস্থাগুলোর উদ্দেশে জারি করা একটি অভ্যন্তরীণ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ পরিচালনা করতে সিঙ্গাপুরের জন্য সীমিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করাও জরুরি হয়ে পড়েছে। কারণ আমাদের স্থানীয় রোগীদের চাহিদার জন্য এটি জরুরি। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এ নির্দেশনা বহাল থাকবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এ পরামর্শ মেনে না চললে তা জনস্বাস্থ্য ও সুরক্ষার ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে এবং পরবর্তী নির্দেশ আরও কঠোর হবে।

করোনাভাইরাসের কারণে সিঙ্গাপুর স্বল্পমেয়াদী পর্যটকদের প্রবেশ এবং ট্রানজিট বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যা কার্যকর হবে সোমবার (২৩ মার্চ) স্থানীয় সময় রাত ১১টা ৫৯ মিনিট থেকে।

তবে যারা স্বাস্থ্যসেবা এবং পরিবহনের মতো প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলোতে কাজ করেন, শুধু তাদের জন্য বিশেষ অনুমতি সাপেক্ষে প্রবেশের অনুমতি দেবে দেশটি। সিঙ্গাপুরে শনিবার করেনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম প্রাণহানি হয়েছে। এ পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ৪৩২ জন। যার মধ্যে ৮০ শতাংশই বাইরে থেকে আসা।

করোনাভাইরাস নয়, জ্বরে আক্রান্ত আতঙ্কিত রোগীদের ভিড়ে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতাল শুক্রবার একটি কারপার্ক সেন্টারে রূপান্তরিত হয়েছিল।

যদি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা সিঙ্গাপুরে বিদেশি রোগীর থাকা জরুরি বলে মনে করেন, তাহলে তারা সেখানে থাকতে বা প্রবেশের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করতে পারবেন।

সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা নিতে হলে বিদেশি রোগীকে অবশ্যই প্রমাণপত্র দিতে হবে যে তার প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা নিজের দেশে সম্ভব নয় এবং বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানেই তাকে থাকতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

  করোনা ভাইরাস