মাস্ক পরুন, না হলে পাঁচশো টাকা পকেটে রাখুন!

  বাংলাদেশে করোনাভাইরাস



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মানিকগঞ্জ
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ নীতি গ্রহণ করেছে সরকার। এই নীতি বাস্তবায়নে কঠোর অবস্থানে মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসন। মাস্ক ব্যবহারে আগ্রহী করতে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইনের পাশাপাশি শাস্তি হিসেবে জরিমানার পথেও হাঁটছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক।

এর ধারাবাহিকতায় সাটুরিয়াবাসীর জন্য মাস্ক ব্যবহার নিয়ে উপজেলা প্রশাসন সাটুরিয়া, মানিকগঞ্জের ফেসবুক আইডি থেকে নতুন বার্তা দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল আলম।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল আলমের পোস্ট

উপজেলা প্রশাসন আইডিতে দেওয়া স্ট্যাটাসে তিনি উল্লেখ করেন,

প্রিয় সাটুরিয়াবাসী,

করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউ এর প্রারম্ভে আপনাদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতের অপেক্ষায় আছি।

মাস্ক পরবেন নাকি জরিমানা গুণবেন সেটা আপনার পছন্দ! এক সময় যারা মাস্ক পরে আসতেন না, তাদের বিনামূল্যে মাস্ক দিতাম। এখন থেকে যারা পরে আসবেন তাদেরকে বরং ফ্রি মাস্ক দেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) সাটুরিয়ার হাট বার। আপনারা যারা হাটে আসবেন দয়া করে মাস্ক পরে আসবেন অথবা ন্যূনতম ৫০০ টাকা পকেটে নিয়ে আসবেন। আপনাদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতের অপেক্ষায় আছি।–ইউ্এনও, সাটুরিয়া।

করোনা প্রতিরোধে ইউএনও’র তার এমন সিদ্ধান্তকে সোশ্যাল মিডিয়ায় স্বাগত জানিয়েছেন অনেকে।

পোস্টের নিচে হৃদয় মাহমুদ নামে একজন কমেন্টস করেছেন ‘সঠিক সময়ে উপযুক্ত সিদ্ধান্ত’।

জরিমানা না করে শারীরিক কোন শাস্তি দিলে মনে হয় বেশি ফলপ্রসু হবে বলে মন্তব্য করেন হাসমত হাসান নামে এক ফেসবুক ব্যবহারকারী।

তার পদক্ষেপের বিষয়ে জানতে চাইলে ইউএনও আশরাফুল আলম বার্তা২৪.কম’কে বলেন, বৃহস্পতিবার সাটুরিয়া হাটে অনেক মানুষের সমাগম হয়। এ সময় করোনা সংক্রমণ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে মাস্কের ব্যবহার বাড়াতে সচেতনতামূলক ওই পোস্ট দেওয়া হয়েছে।

  বাংলাদেশে করোনাভাইরাস