সবার জন্য পান্তা ভাত ফ্রি!

  ‘এসো হে বৈশাখ’


সোহেল মিয়া, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বর্ণাঢ্য আয়োজনে চলছে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ। দিনটিকে যথাযথ মর্যাদায় উদযাপনের লক্ষ্যে দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠান মেলার আয়োজন করেছে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রশাসন। সব আয়োজনের মধ্যে ছিল পান্তা ভাত খাওয়া। আর এই পান্তা ভাত ছিল উক্ত অনুষ্ঠানে আগত সব দর্শকদের জন্য একেবারে ফ্রি। যা আগত দর্শকদের মধ্যে দারুণভাবে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

রোববার (১৪ এপ্রিল) সরেজমিনে সকাল ৯ টায় বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বাস ভবনে গিয়ে দেখা যায়, মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষে সবাই শিশুপার্কে ঢুকছে। সেখান থেকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে সঞ্চালক ঘোষণা দেন- সম্মানীত সুধী, পহেলা বৈশাখের শুভেচ্ছে। আপনারা শুনে আনন্দিত হবেন আপনাদের সবার জন্য পান্তা ভাতের আয়োজন করা হয়েছে।


সঞ্চালকের কণ্ঠে এমন ঘোষণা শুনে উপস্থিত সবাই হতবিহ্বল হয়ে পড়েন। কেউ কেউ প্রশ্ন করতে থাকেন- প্রতি প্লেটের দাম কত? সাথে সাথে আবার সঞ্চালক সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়ে পুনরায় ঘোষণা দেন- সবার জন্য একেবারে ফ্রি। ইচ্ছা করলেই যে কেউ খেতে পারবেন।

এমন ঘোষণার পরই পার্কে থাকা সবাই ছুটে যান নির্বাহী কর্মকর্তার বাস ভবনে। সেখানে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে প্লেট হাতে নিয়ে যার যার পান্তা ভাত সংগ্রহ করেন। পান্তা ভাতের সঙ্গে ছিল আলু ভর্তা, ডাল ভর্তা, কাঁচামরিচ, পেঁয়াজ ও দেশি রুই মাছ। খাবার পেয়ে সবাই বেশ খুশি।


খাবার শেষে অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে গিয়ে জয়িতা, স্নেহা বসু, রিয়া কুন্ডু বার্তা২৪.কমকে জানান, তারা সবাই শিক্ষার্থী। প্রশাসন আয়োজিত পহেলা বৈশাখ উদযাপনের জন্য সকালে বাসা থেকে বের হয়েছি না খেয়ে। ৯ টার দিকে মাইকের ঘোষণা শুনে প্রথমে বুঝতে পারিনি। পরে ভালো করে খেয়াল করে শুনি। নিশ্চিত হওয়ার পর দৌড়ে ইউএনও স্যারের বাস ভবনে চলে যায়। সেখান থেকে পান্তা ভাত সংগ্রহ করে পেট ভরে খেয়েছি। উদ্যোগটা দারুণ ছিল।

সহকারি কমিশনার (ভূমি) হাসিবুল হাসান বার্তা২৪.কমকে জানান, আয়োজনটা স্মরণীয় করে রাখার জন্যই প্রশাসনের পক্ষ থেকে নানা ধরনের আয়োজন ছিল। তার মধ্যে সবার জন্য ফ্রি পান্তা ভাতটার আয়োজন করা ছিল অসাধারণ। আমরা ৫০০ মানুষের খাবারের ব্যবস্থা করেছিলাম। খাবার সবাই খেয়েছে।


উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বার্তা২৪.কমকে জানান, বৈশাখ মানেই বাঙালির প্রাণের উৎসব। বাঙালির প্রাণের এই উৎসবকে আকর্ষণীয় ও স্মরণীয় করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকালে মঙ্গল শোভাযাত্রা, পান্তা ভাত, গ্রামীণ নানা ধরনের খেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন ছিল। এরমধ্যে আমরা মঙ্গল শোভাযাত্রা ও অনুষ্ঠানে আসা সবার জন্য ফ্রি পান্তা ভাতের আয়োজন করেছিলাম। সবাই খুব খুশি পান্তা ভাত খেয়ে।

   

ভারী বৃষ্টিতে সিকিমে আটকা হাজারো পর্যটক



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিকিমে ভারী বৃষ্টিতে গাছপালা ভেঙে, পাহার ধ্বসে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। এর ফলে আটকা পড়েছেন অনেক পর্যটক। খারাপ আবহাওয়ার কারণে উদ্ধার কাজও চালাতে পারছে না প্রশাসন।

এদিকে উত্তর সিকিমে দু’‌হাজার পর্যটক আটকা পড়েছেন। তা‌দের উদ্ধারে বিমান বাহিনীর সাহায্য চেয়েছে সিকিম প্রশাসন। আর পাকইয়াং বিমানবন্দরের কর্মকর্তা সঞ্জীব কুমার সিং বলেছেন, ‘রাজ্যের পক্ষ থেকে নির্দেশ পেয়েছি। লাচুং এবং চুংথাং থেকে আটকে পড়া পর্যটকদের উদ্ধার করার জন্য। কিন্তু খারাপ আবহাওয়ায় সেটা থমকে আছে। আমরা উদ্ধার কাজ করতে প্রস্তুত।’‌

লাচুংয়েই তিনদিন ধরে আটকে রয়েছেন ১২০০ পর্যটক। মঙ্গনের পুলিশ সুপার সোনম ডিকচু ভুটিয়া জানান, প্রতিকূল আবহাওয়ার জেরে এখনও উত্তর সিকিমের দুর্গম এলাকায় উদ্ধারকাজ শুরু করা যায়নি। স্থানীয়ভাবে সবরকম চেষ্টা চলছে। হেলিকপ্টার নামার মতো আবহাওয়া না থাকায় উদ্ধারকাজ ব্যাহত হচ্ছে। এই পরিস্থিতি মোকাবিলায় সেনাবাহিনী, সিকিম আর্মড পুলিশ এবং বিপর্যয় মোকাবিলা দলের সদস্যদের পাঠানো হয়েছে। রংপোয় হেল্প ডেস্ক চালু করা হয়েছে। যোগাযোগের নম্বর ৮৭৬৮০৯৫৮৮১ এবং ৯০৫১৪৯৯০৯৬। সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী প্রেম সিং তামাং শনিবার ধস বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন। রোববার সকাল পর্যন্ত মঙ্গন জেলায় ‘রেড অ্যালার্ট’ জারি করা হয়েছে।

আগামী কয়েকদিন সিকিম, দার্জিলিংসহ উত্তরবঙ্গে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি করা হয়েছে। চারদিন ধরে টানা বৃষ্টির জেরে উত্তর সিকিমের দিকে যাওয়ার একাধিক রাস্তা ডিকচু-সঙ্কলং-টুং, মাগান-সঙ্কলং, সিংথাম-রাংরাং, রাংরাং-টুং ধসে বিধ্বস্ত হয়েছে।

  ‘এসো হে বৈশাখ’

;

ঈদে নতুন পোশাক পেল শতাধিক বেদে শিশু শিক্ষার্থীরা



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, লক্ষ্মীপুর
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদুল আজহা উপলক্ষে লক্ষ্মীপুরে শতাধিক বেদে শিশু শিক্ষার্থীর মাঝে নতুন পোশাক বিতরণ করা হয়েছে। রোববার (১৬ জুন) দুপুরে প্রধান অতিথি হিসেবে সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম সালাহ উদ্দিন টিপু এ পোশাক বিতরণ করেন।

এ উপলক্ষে উপজেলার মজুচৌধুরীরহাট এলাকায় মেঘনারপাড় ধীবর বিদ্যা নিকেতন প্রাঙ্গণে মানবতাই ধর্ম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ব্যানারে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভা শেষে বিদ্যালয়ের বিভিন্ন শ্রেণির শতাধিক শিক্ষার্থীর হাতে নতুন পোশাক তুলে দেওয়া হয়।

মানবতাই ধর্ম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উপদেষ্টা আশফাকুর রহমান মামুনের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন উত্তর হামছাদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, ব্যবসায়ী শরীফ মোল্লা, ও মানবতাই ধর্ম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সভাপতি শংকর মজুমদার প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে একেএম সালাহ উদ্দিন টিপু বলেন, বেদে পরিবারগুলো অসহায়। ঝড়-বৃষ্টি-রোদ সহ্য করেই তাদেরকে নৌকাসহ বিভিন্ন স্থানে মানবেতর জীবনযাপন করতে হয়। ঈদসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তাদের জন্য অন্যান্য দিনের মতো স্বাভাবিক। ঈদে তাদের অধিকাংশই সন্তানদেরকে নতুন জামা কিনে দেওয়ার সামর্থ্য রাখে না। তবে এবার বেদে শিশুরা নতুন জামা পড়বে। তারাও সবার মতো ঈদ আনন্দ করবে। বেদে শিশুদের প্রত্যেককেই নতুন পোশাক দেওয়া হয়েছে।

  ‘এসো হে বৈশাখ’

;

কাকড়াইলে এসএ পরিবহনে আসা পার্সেলে মিললো ইয়াবা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর কাকরাইলে এস এ পরিবহনে আসা একটি কুরিয়ারের ব্যাগ থেকে ৭ হাজার ২৫০ পিস ইয়াবা জব্দ করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর (উত্তর)।

শনিবার (১৫ জুন) দুপুরে অভিযান চালিয়ে এই ইয়াবা জব্দ করা হয়। রবিবার (১৬ জুন) এ তথ্য নিশ্চিত মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (উত্তর) সহকারী পরিচালক রাহুল সেন।

তিনি বলেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে কাকরাইলের এস এ পরিবহনের অফিসে অভিযান চালানো হয়। সেখানে গিয়ে স্কচটেপ দিয়ে মোড়ানো শপিং ব্যাগ থেকে ৭ হাজার ২৪০ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। তবে প্রাথমিক অবস্থায় এর মালিকের সন্ধান পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থল থেকে বেশ কিছু আলামত জব্দ করা হয়েছে। এই ইয়াবা কে পাঠিয়েছে আর কাকে পাঠিয়েছে সে বিষয়ে তদন্ত চলছে।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় পল্টন মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। জরিতদের চিহ্নিত করতে কাজ চলছে।

  ‘এসো হে বৈশাখ’

;

জকিগঞ্জে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে চিনি ছিনতাইয়ের অভিযোগ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সিলেট
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিলেটে একের পর এক চিনি ছিনতাইয়ের ঘটনায় নাম উঠে আসছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে। চিনি ছিনতাইকান্ডে কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হলেও থামানো যাচ্ছে না ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের। সম্প্রতি চিনি কান্ডে বিয়ানীবাজার উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। তার রেস কাটতে না কাটতেই এবার সীমান্তবর্তী আরেক উপজেলা জকিগঞ্জে ৪০ বস্তা চিনি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে।

গত বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার কালিগঞ্জ বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে সমালোচনা। অভিযোগের তীর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুলতান আহমদের বিরুদ্ধে। তার নেতৃত্বে চিনি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। তবে বিষয়টি অস্বীকার করেছেন ছাত্রলীগ সভাপতি সুলতান আহমদ।

পুলিশ বলছে-ভুক্তভোগীদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে। অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কানাইঘাট উপজেলার আব্দুর রহিম ও ময়নুল হক নামের দুই ব্যক্তি বৃহস্পতিবার বিকেলে চারটি টমটম দিয়ে ৪০ বস্তা ভারতীয় চিনি কালিগঞ্জ বাজারে বিক্রির জন্য নিয়ে যাচ্ছিলেন। কালিগঞ্জ বাজারে অদূরে ইছামতি ডিগ্রী কলেজের সামনে টমটমটি পৌঁছামাত্র উপজেলা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাসহ ৮-১০ জন নেতাকর্মী টমটমটি আটকিয়ে চিনির বস্তাগুলো ছিনতাই করে নিয়ে যান। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদে দুই পক্ষকে নিয়ে একটি সালিশ বৈঠক ডাকা হয়। কিন্তু বৈঠকে ছাত্রলীগ নেতারা উপস্থিত হয়ে বিচার না মেনে উল্টো হুমকি-ধমকি দিয়ে চলে যান।

এদিকে, ওই দিনের ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ছড়িয়ে পড়া ৪ মিনিট ১ সেকেন্ডের একটি সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, বাজারে প্রবেশের সময় একটি টমটম আটকায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এসময় কয়েকজন নেতাকর্মী টমটম থেকে চিনির বস্তা নামিয়ে নেন। এতে বাঁধা দিলে টমটম চালককে মারধরের চেষ্টা করা হয়।

এ বিষয়ে মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু জাফর মো.রায়হান বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি, সহসভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদকের নেতৃত্বে চিনি ছিনতাই করে নিয়ে যাওয়া হয়। এ ঘটনার পর রাতে ইউনিয়ন পরিষদে সকল সদস্যের উপস্থিতিতে চিনির মালিক ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে বৈঠক ডাকা হয়। বৈঠকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত হন। এসময় ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত ছাত্রলীগের এক নেতাকে টমটম চালক চিনে ফেলায় তারা উল্টো বৈঠক থেকে উঠে যান। এসময় তারা হুমকি দিয়ে যান।

তিনি আরও বলেন, চিনির মালিক জানিয়েছেন তিনি সিলেট থেকে চিনি কিনে নিয়ে যাচ্ছিলেন। তার কাছে চিনি ক্রয়ের একটি রশিদও রয়েছে।

এ ব্যাপারে জকিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সুলতান আহমদ বলেন, চিনি ছিনতাইয়ের সঙ্গে আমি জড়িত নয়। যারা এই কাজ করেছে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি। ইউনিয়ন পরিষদে বৈঠকে হুমকি দেয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বাজারে আমার একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। বাজারে পাশেই ইউনিয়ন পরিষদ। আমাকে বৈঠকে ডাকা হলে আমি সেখানেও বলেছি সঠিক তদন্ত করে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে।

জকিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.জাবেদ মাসুদ বলেন, আপনাদের ও ফেসবুকের মাধ্যমে বিষয়টি জানি। আমরা ভুক্তভোগীদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছি। অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

  ‘এসো হে বৈশাখ’

;