ঘূর্ণিঝড় রিমাল-এর পর আসছে ‘আসনা’, ‘ডানা’, ‘ফেঙ্গাল’

  ঘূর্ণিঝড় রিমাল


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বঙ্গোপসাগরের উপর দিয়ে স্থলভাগের কাছে আঘাত হেনতে শুরু করেছে ঘূ্র্ণিঝড় ‘রিমাল’। শেষ ছ’ঘণ্টায় তার গতিবেগ রয়েছে ১৩ কিলোমিটার। আঘাত হানার সময় এতে বাতাসের শক্তি থাকতে পারে ঘণ্টায় ১শ ২০ কিলোমিটারের মতো বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

ঘূর্ণিঝড় ‘রিমাল’-এর পর পরবর্তীতে অনেকগুলো ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানবে। ইতোমধ্যে, ঘূর্ণিঝড়গুলোর নাম প্রকাশ করেছে বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা আঞ্চলিক কমিটি।

এবারের ঘূর্ণিঝড় ‘রিমাল’-এর নামকরণ করেছে ওমান। পরবর্তীতে যেসব ঘূর্ণিঝড় আঘাতের সম্ভাবনা রয়েছে, সেগুলোর নাম যথাক্রমে- ‘আসনা’ (পাকিস্তান), ‘ডানা’ (কাতার), ‘ফেঙ্গাল’ (সৌদি আরব), ‘শক্তি’ (শ্রীলঙ্কা), ‘মন্থ’ (থাইল্যান্ড), ‘সেনিয়ার’ (সংযুক্ত আরব আমিরাত) ও ‘দিত্ত্ব’ (ইয়েমেন)।

সাধারণত সাগরে নিম্নচাপের সময় বাতাসের প্রচণ্ড গতির ফলে সংঘটিত বায়ুমণ্ডলীয় উত্তাল অবস্থাকে সংক্ষেপে ঘূর্ণিঝড় বলা হয়। বাতাসের এই গতি যখন একটি নির্দিষ্ট মাত্রায় পৌঁছায়, তখনই ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ করা হয়।

রিমালের আগেও বাংলাদেশে ‘সিডর’, ‘আইলা’, ‘আম্ফান’ ও ‘মোখার’ মতো বিভিন্ন নামের ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে।

২০০৪ সালে ভারত মহাসাগর অঞ্চলের জন্য ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণে একটি কমিটি করা হয়। ৮টি দেশ নিয়ে তখন একটি কমিটি গঠন করা হয়। এগুলি হচ্ছে- বাংলাদেশ, ভারত, মালদ্বীপ, মিয়ানমার, ওমান, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা এবং থাইল্যান্ড। পরে ২০১৯ সালে ইরান, কাতার, সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইয়েমেন নামকরণ কমিটিতে যুক্ত হয়।

ঘূর্ণিঝড় নামকরণে ১৩ দেশের সমন্বয়ে যে কমিটি রয়েছে, তারা ঘূর্ণিঝড়ের নাম নির্ধারণ করে। বর্তমান ‘রিমাল’-এর নাম নির্ধারণ করেছে ওমান। এর পরে যে ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানবে, তার নাম নির্ধারণ করেছে ‘আসনা’- পাকিস্তান।

   

১৫ লাখ টাকার ছাগল কাণ্ড

সাদিক এগ্রোর ১৫ লাখ টাকার ছাগল কাণ্ড: কে এই মুশফিক ইফাত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দু’দিন আগে উদযাপিত কোরবানি ঈদে কোটি টাকার গরু ও ১৫ লাখ টাকায় ছাগল বিক্রির ঘটনায় বিতর্কের মুখে পড়ে সাদিক এগ্রো।

কোটি টাকার গরুর ক্রেতার নাম প্রকাশ না পেলেও ছাগলের ক্রেতার পরিচয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করেন নেটিজেনরা। আর এতেই একজন সরকারি কর্মকর্তার ছেলের ১৫ লাখ টাকায় ছাগল কেনায় শুরু হয় বিতর্ক।

জানা যায়, সাদিক এগ্রো থেকে ১৫ লাখ টাকায় ছাগল কেনেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সদস্য এবং কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট আপিলাত ট্রাইব্যুনালের প্রেসিডেন্ট মতিউর রহমানের বড় ছেলে মুশফিকুর রহমান ইফাত।

তবে এই বিতর্কে নতুন করে ঘি ঢালেন ইফাতের বাবা মতিউর রহমান নিজেই। তিনি সংবাদমাধ্যমে দাবি করেন, ‘ইফাত’ নামে তার কোনো ছেলে নেই! এমনকী আত্মীয় বা পরিচিতও নয় সে। তার একমাত্র ছেলের নাম তৌফিকুর রহমান।

তিনি আরো দাবি করেন, তার ছবি ও নাম সামাজিকমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ায় বিব্রত হয়েছেন তিনি। পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের সহায়তা চেয়ে আইনি পদক্ষেপে যাচ্ছেন এই সরকারি কর্মকর্তা।

তবে বার্তা২৪.কমের অনুসন্ধানে নিশ্চিত হওয়া গেছে, ছাগল কাণ্ডে আলোচিত মুশফিকুর রহমান ইফাত জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সদস্য এবং কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট আপিলাত ট্রাইব্যুনালের প্রেসিডেন্ট মতিউর রহমানের বড় ছেলে। ইফাতসহ তিন ভাই-বোন তারা। ইফাত ছাড়াও তার এক ভাই ও এক বোন রয়েছে।

রাজধানীর ধানমণ্ডি ৮ নম্বরে নিজস্ব বাড়ি রয়েছে তাদের। এছাড়া ইফাতের পরিবার রাজধানীর রমনা থানার সেগুনবাগিচা এলাকায় সরকারি বাসায় থাকে। ইফাত নটরডেম কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাস করেছেন।

ইফাতের পরিবারের সবাই বর্তমানে গা ঢাকা দিয়ে আছেন। ধানমণ্ডির বাড়ি ছেড়ে অন্য কোথাও চলে গেছেন। তাদের সঙ্গে নানাভাবে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।


তবে ইফাতের এক ঘনিষ্ঠ এক স্বজন জানিয়েছেন, সাদিক এগ্রোতে ছাগল কেনার বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পরে ইফাত নিজেই পরিবারের তোপের মুখে পড়েন। বিষয়টি নিয়ে নানাভাবে সমালোচনা সৃষ্টি হওয়ায় মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন তিনি। ঈদের আগে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন ইফাত।

ভাইরাল হওয়া ছবি ও ভিডিও’র বিষয়ে ইফাত বার্তা২৪.কমের কাছে দাবি করেন, পূর্ব পরিচিত ইমরানের সাদিক এগ্রোতে কোরবানির পশু দেখতে গিয়েছিলেন তিনি। তখন ইমরান তাকে ক্রেতা সাজিয়ে ছবি তুলতে অনুরোধ করেন। সেই সময়ে তিনি একটি ভিডিওতেও কথা বলেন।

ইফাত বলেন, ‘এই বিষয়টা নিয়ে বাসা থেকে আমাকে অনেক কথা শুনতে হয়েছে। আমার পরিবারকে ছোট হতে হয়েছে। আসলে আমার একটা ভুলের কারণেই এটা হয়েছে’!

  ঘূর্ণিঝড় রিমাল

;

‘সেনাবাহিনীর প্রতিটি সদস্য দেশের মঙ্গলের জন্য কাজ করেন’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা ২৪.কম, সাভার (ঢাকা)
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সেনাবাহিনীর প্রতিটি সদস্য দেশের মঙ্গলের জন্য কাজ করেন বলে মন্তব্য করেছেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ।

বুধবার (১৯ জুন) দুপুরে সাভার সেনানিবাসে বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি একথা বলেন।

সেনাবাহিনী প্রধান আরও বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চাকরি খুব চ্যালেঞ্জিং, দেশের কল্যাণের জন্য সবসময় প্রস্তুত থাকতে হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে আধুনিকায়ন করেছে বলেও জানান তিনি।

এর আগে, সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, এসবিপি (বার), ওএসপি, এনডিইউ, পিএসসি, পিএইচডি সাভার সেনানিবাসে পৌছে সেনা-সদস্যদের সেনাবাহিনী প্রধান সাভার এরিয়ার সকল পদবীর সেনাসদস্যদের উদ্দেশ্যে বিদায়ী দরবার গ্রহণ করেন এবং মতবিনিময় করেন। পরে ডিওএইচএস এলাকায় তিন কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ মসজিদ উদ্বোধন করেন ও সেখানে বৃক্ষ রোপণ করেন। এরপরে সেনাবাহিনী প্রধানকে নবম পদাতিক ডিভিশনের পক্ষ থেকে বিদায়ী সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এসময় তাকে একটি খোলা জিপে করে বিদায়ী সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

এসময় বিদায়ী অনুষ্ঠানে সেনাসদরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণসহ সাভার সেনানিবাসের সব পদবীর কর্মকর্তাগণ, জেসিও, অন্যান্য পদবীর সেনাসদস্যগণ এবং গণমাধ্যম ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

  ঘূর্ণিঝড় রিমাল

;

নরসিংদীর চরাঞ্চলে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত ১০



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নরসিংদী
নরসিংদীর চরাঞ্চলে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত ১০

নরসিংদীর চরাঞ্চলে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত ১০

  • Font increase
  • Font Decrease

নরসিংদীর চরাঞ্চল নজরপুরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলি ও টেঁটা বিদ্ধ হয়ে পুলিশসহ ১০ জন আহত হয়েছে।

বুধবার (১৯ জুন) বেলা ১১টায় থেকে সদর উপজেলার নজরপুর ইউনিয়নের আলিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলো, নরসিংদী মডেল থানার এসআই জয় বণিক (৩১), আলিপুর গ্রামের আবুল মিয়ার স্ত্রী জামিনা বেগম (৭০), কামাল মিয়ার ছেলে ফারুক মিয়া (৩৫), রওশন আলীর ছেলে ফরহাদ (৩০), কামাল মিয়ার ছেলে দাউদ মনা (৪০), খলিল মিয়ার ছেলে ফারুক মিয়া (৪০) ও ফরহাদ (৩৫)। এরা সবাই শাহজাহান মনার সমর্থক।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, নজরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইসমাইল কোম্পানি ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান মনার এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বিরোধ চলে আসছিল। বুধবার সকাল ১১টার দিকে ইসমাইল কোম্পানির লোকজন শাহজাহান মনার লোকজনের উপর অস্ত্র, টেঁটা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এসময় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। পরে ছোড়া গুলি ও টেঁটা বিদ্ধ হয়ে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়। এদের মধ্যে শাহজাহান মনার সমর্থক দাউদ মনা, সাইফুল ইসলাম, ফারুক মিয়া ও স্থানীয় দোকানি জামিনা বেগম গুলিবিদ্ধ আর ফারুক মিয়া, ফরহাদ টেঁটা বিদ্ধ হয়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণ আনতে গিয়ে নরসিংদী মডেল থানা পুলিশের এ এস আই জয় বণিক গুলিবিদ্ধ হয়। পরে আহতদের উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতাল ও মাধবদীর হাসপাতালে নেয়া হয়।

নরসিংদী সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডা. মাহমুদুল কবীর বাশার কমল জানান, পুলিশের একজন এএসআইসহ গুলিতে আহতদের হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

আহত এএসআই জয় বণিক বলেন, দুই পক্ষের সংঘর্ষের খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। এসময় একটি ছোঁড়া গুলি এসে আমার হাতে লাগে। পরে আমি সদর হাসপাতালে এসে চিকিৎসা নিয়েছি।

নজরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম স্বপন বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই এদের মধ্যে আধিপত্য নিয়ে বিরোধ চলছে। একাধিকবার সমাধানের চেষ্টা করেছি। তারপরও তারা বারবার সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। আজকেও তারা আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়ায়। এতে পুলিশসহ অনেকে আহত হয়েছে। আমরা এলাকার পরিস্থিতি শান্তিপূর্ণ রাখতে কাজ করছি।

এ বিষয়ে জানতে নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শহীদুল ইসলাম সোহাগ ও নরসিংদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভীর আহমেদের মুঠোফোনে একাধিক কল দিলেও সাড়া পাওয়া যায়নি।

  ঘূর্ণিঝড় রিমাল

;

চট্টগ্রামে জলোচ্ছ্বাস ও ভূমিধসের বিষয়ে চসিকের সতর্কবার্তা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রামে জলোচ্ছ্বাস ও ভূমিধসের বিষয়ে সতর্কবার্তা দিল চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)৷

বুধবার (১৯ জুন) চসিক সচিব মোহাম্মদ আশরাফুল আমিনের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ বিষয়ে কাউন্সিলরদের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে৷ এছাড়া ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় থাকা নাগরিকদের নিরাপদ আশ্রয় সরে যেতে মাইকিং করছে চসিক৷

আবহাওয়া অফিসের সতর্কবার্তা অনুসারে আগামী ৩ দিন সক্রিয় মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা সৃষ্টি হচ্ছে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগরে উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্র বন্দরসমূহের উপর দিয়ে দমকা/ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন এলাকায় জলোচ্ছ্বাস ও ভূমিধসের সম্ভাবনা রয়েছে মর্মে আবহাওয়া অধিদফতর কর্তৃক ১৩ জুন সতর্কবাণীতে উল্লেখ রয়েছে। এছাড়াও উক্ত সতর্ক বার্তায় চট্টগ্রাম বন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এমতাবস্থায়, আবহাওয়া অফিসের সতর্ক বার্তা অনুযায়ী জলোচ্ছ্বাস এবং ভূমিধসের বিষয়ে যথাযথ প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কাউন্সিলরবৃন্দ জানিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন।

এছাড়া, করপোরেশনের পক্ষ থেকে পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাসরতদের দ্রুত নিরাপদ স্থানে সরে যেতে নির্দেশনা প্রদান করেছে চসিক৷

  ঘূর্ণিঝড় রিমাল

;