সময়োপযোগী ও জনকল্যাণমুখী বাজেট

  বাজেট অর্থবছর ২০২১-২২



আরমান আলী, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

‘জীবন ও জীবিকার প্রাধ্যান্য, আগামীর বাংলাদেশ' এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে দেশের ইতিহাসে ৫০ তম বাজেট উত্তাপিত হয়েছে বৃহস্পতিবার (৩জুন) বিকেল ৩টায়। দল হিসেবে আওয়ামী লীগ সরকারের এটি ২১ তম বাজেট।

এবারের বাজেটের আকার ৬ লাখ ২ হাজার ৮৮১ কোটি টাকা। যা মোট জিডিপির ১৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ। এটি চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের তুলনায় ৬৪ হাজার ৬৯৮ কোটি টাকা বেশি। এবার বাজেটের রাজস্ব আহরণের বড় অংশ বৈদেশিক অনুদান নির্ভর। এবার সর্বোচ্চ ৯০ হাজার কোটি টাকা বৈদেশিক অনুদান থেকে সংস্থান করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সরকার।

বাজেট পেশের পর ব্যবসীয় সংগঠন, অর্থনীতিবিদ এবং রাজনৈতিক দল ও ব্যক্তি নানা প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করছে।

বাজেট ঘোষণা পর ক্ষমতাসীন দলের আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ৫০তম বাজেটকে জনকল্যাণ ও সময়োপযোগী বলে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় দিয়ে যাচ্ছেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, এই বাজেট সময়োপযোগী ও জনকল্যাণমুখী। এই বাজেট বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে যে অগ্রসর হচ্ছি তা সহায়ক হবে। মহামারি করোনার কারণে বিশ্ব অর্থনীতি যখন মন্দা, সে মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সময়উপযুগী এ বাজেট দিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনী ইশতেহারের মাধ্যমে যে ওয়াদা করেছিলেন, এই বাজেট সেই ওয়াদা বাস্তবায়নের অংশ। পাশাপাশি বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর ৪১’ সালের উন্নত বাংলাদেশ গড়ার জন্য সহায়তা করবে প্রস্তাবিত এই বাজেট। দেশকে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের বসবাসের উপযোগী একটি আধুনিক রাষ্ট্র গড়ে তোলার লক্ষ্যে বাজেট জাতির কাছে উপস্থাপন করেছেন। এই বাজেটে দেশের ধনী, গরিব মধ্যবিত্ত সবাই উপকৃত হবে।

নতুন বাজেট দেশের সকল মানুষের অংশগ্রহণের নিশ্চয়তাসহ বাস্তব ভিক্তিক সংকটকালীন সময়োপযোগী বলে মন্তব্য করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে মহামারীর বাস্তবতায় দাঁড়িয়ে মানুষের জীবন-জীবিকা বাঁচিয়ে অর্থনীতি জাগানোর চ্যালেঞ্জ সামনে নিয়ে নতুন ২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকার বাজেট জাতীয় সংসদের সামনে উপস্থাপন করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বাজেট উপস্থাপন শেষে জাতীয় সংসদ থেকে বের হওয়ার সময় সাংবাদিকদের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেন তিনি।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, “দেশের সকল মানুষের অংশগ্রহণের নিশ্চয়তাসহ এটি একটি বাস্তব ভিক্তিক সংকটকালীন সময়োপযোগী বাজেট।”

বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় এলাকায় আনন্দ মিছিল করে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতারা।

এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় আনন্দ মিছিল শেষে রাজু ভাস্কর্যের সামনে সমাবেশ করে ছাত্রলীগ।

উল্লেখ্য, ১৯৭২ সালের ৩০ জুন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বধীন সরকার স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম বাজেট পেশ করেন। তখনকার আওয়ামী লীগ সরকারের অঅর্থমন্ত্রী তাজদ্দীন আহমদ উপস্থাপিত সেই বাজেট ছিল৭৮৬ কোটি টাকার। ১৯৭২সালের ৩০ জুন ববঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বাধীন সরকার স্বাদীন বাংলাদেশের প্রথম বাজেট পেশ করেন। তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকারের অর্থমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমদ উপাস্থাপিতসেই বাজেট ছিল ৭৮৬ কোটি টাকা।

  বাজেট অর্থবছর ২০২১-২২

‘শেখ হাসিনাকে সরানো সহজ নয়’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজশাহী
জনসমাবেশ

জনসমাবেশ

  • Font increase
  • Font Decrease

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে রাজশাহীতে আয়োজিত এক জনসমাবেশে বক্তারা বলেছেন, শেখ হাসিনা দেশে ফিরেছিলেন বলেই বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। তিনি ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়েছেন। তাই দেশের মানুষ শেখ হাসিনার সঙ্গেই থাকবেন। শেখ হাসিনা এক শান্তির প্রতীকের নাম। তাকে সরানো সহজ ব্যাপার নয়।

রাজশাহী জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ নগরীর বাটার মোড় এলাকায় মঙ্গলবার (১৭ মে) বিকালে এ জনসমাবেশের আয়োজন করে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ যখন প্রয়োজন মনে করে তখনই রাস্তায় শত সহস্র মানুষের ঢল নামাতে পারে। স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে এই কর্মসূচি সেটি আবার প্রমাণ করেছে।

লিটন বলেন, বঙ্গবন্ধুসহ পরিবারের সবাইকে হারিয়ে অভিমানে তার দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা দেশে না-ও ফিরতে পারতেন। বলতে পারতেন- গেলাম না দেশে। কিন্তু তারা তা করেননি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের দেশ গড়তে তারা ফিরে এসেছেন। বলেছিলেন, জীবন দিয়ে হলেও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণ করব। এখন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর সেসব স্বপ্নই পূরণ করছেন।

জনসমাবেশে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন দলের রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন। তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান যখন অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে গণতন্ত্র কেড়ে নিলেন, তখন আলোর দিশারী হয়ে দেশে ফিরেছিলেন শেখ হাসিনা। তিনি ফিরেছিলেন বলে দেশে গণতন্ত্র ফিরেছে। বঙ্গবন্ধু-জাতীয় চার নেতা হত্যার বিচার হয়েছে। দেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল হয়েছে।

নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামালের সভাপতিত্বে এই জনসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লায়েব উদ্দিন লাভলু ও মহানগরের যুগ্ম সম্পাদক আহসানুল হক পিন্টু। বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য বেগম আখতার জাহান, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল কুমার সরকার, সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াদুদ দারা ও মহানগরের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার।

সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- রাজশাহী-৫ আসনের সংসদ সদস্য ডা. মুনসুর রহমান, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য আদিবা আনজুম মিতা, সাবেক প্রতিমন্ত্রী জিনাতুননেসা তালুকদার, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি জাকিরুল ইসলাম সান্টু, নগরের সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, জেলার সদস্য ডা. আনিকা ফারিহা জামান অর্না প্রমুখ। জনাকীর্ণ এই সমাবেশে জেলা ও মহানগরের সকল ইউনিটের আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

  বাজেট অর্থবছর ২০২১-২২

;

‘শেখ হাসিনা দেশে ফিরেছিলেন বলেই অর্থনীতিতে মুক্তি লাভ করেছি’



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ভোলা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য, সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী ও ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, আওয়ামী লীগের সভাপতি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৮১ সালের এই দিনে স্বজন হারানোর বেদনা নিয়ে বাংলাদেশে পা রাখেন। ওই দিন এখন স্মৃতির পাতায় ভেসে ওঠে। এক পাশে আমি, অপর পাশে রাজ্জাক ভাই। নেত্রী বললেন, ক্ষমতার জন্য আসিনি। দেশের মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য এসেছি। আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তায়িত হচ্ছে। এটাই আমাদের বড় পাওয়া।

মঙ্গলবার (১৭ মে) দুপুরে ভোলা জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে ঢাকা থেকে ভার্চুয়ালি এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনা দেশে এসেছিলো বলেই বাংলাদেশ আজ অর্থনীতিতে মুক্তি লাভ করেছে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন অনেক দূর এগিয়ে গেছে; সেদিন বেশি দূরে নয়, যেদিন স্বাধীন বাংলাদেশ হবে মর্যাদাশালী, ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা। আমরা সেই পথেই বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে চলেছি। ইনশাল্লাহ্ বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্ন পূরণ হবে। এটাই শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের দিনে আমাদের প্রত্যাশা।

এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি দোস্ত মাহামুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ভোলা সদর উপজেলার চেয়ারম্যান মো. মোশারেফ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট জুলফিকার আহমেদ, আশরাফ হোসেন লাবু, সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক আরজু , জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, ভোলা সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউনুসসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতাকর্মীরা।

  বাজেট অর্থবছর ২০২১-২২

;

মির্জা আব্বাসকে দেখতে হাসপাতালে ফখরুল



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
মির্জা আব্বাসকে দেখতে হাসপাতালে ফখরুল

মির্জা আব্বাসকে দেখতে হাসপাতালে ফখরুল

  • Font increase
  • Font Decrease

অসুস্থ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও আহত নাটোর জেলা ছাত্র নেতৃবৃন্দকে দেখতে হাসপাতালে যান দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

মঙ্গলবার (১৭ মে) দুপুরে শ্যামলী স্পেশালাইজ হাসপাতালে অসুস্থ মির্জা আব্বাসের চিকিৎসকের কাছে থেকে শারীরিক অবস্থা বিষয়ে খোঁজ নেন মির্জা ফখরুল। সে সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম।

গত ১৪ মে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে আওয়ামী লীগের হামলায় মারাত্মকভাবে আহত হন নাটোর জেলা ছাত্র নেতা এস এম মোস্তফা আনাম ও শরিফুল ইসলাম সুমন। বর্তমানে তারা শ্যামলী পুঙ্গ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদের দেখতে যান বিএনপি মহাসচিব।

এছাড়া সোমবার (১৬ মে) বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় এভারকেয়ার হাসপাতালে অসুস্থ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ডক্টর আব্দুল মঈন খানের শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে যান বিএনপি মহাসচিব।

  বাজেট অর্থবছর ২০২১-২২

;

হাসপাতালে মির্জা আব্বাস



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস হঠাৎ অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৭ মে) সকালে অসুস্থ হয়ে রাজধানীর শ্যামলীতে বাংলাদেশ স্পেশালাইড হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি।

মির্জা আব্বাসের অসুস্থতার তথ্য নিশ্চিত করে তার ব্যক্তিগত সহকারী সোহেল জানান, পেটের পীড়ায় অসুস্থ হয়ে হাসপাতালের গ্যাস্ট্রোলিভার বিভাগের অধীনে ভর্তি হয়েছেন মির্জা আব্বাস।

  বাজেট অর্থবছর ২০২১-২২

;