সরগরম ছিল আদালত পাড়া, অপরাধ নির্মূলে ‘দৃষ্টান্তমূলক’ রায়

  সালতামামি



সুলতান মাহমুদ আরিফ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
সরগরম ছিল আদালত পাড়া, অপরাধ নির্মূলে ছিল ‘দৃষ্টান্তমূলক’ রায়

সরগরম ছিল আদালত পাড়া, অপরাধ নির্মূলে ছিল ‘দৃষ্টান্তমূলক’ রায়

  • Font increase
  • Font Decrease

জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত নানা ঘটনা প্রবাহের মধ্য দিয়ে শেষ হতে চলেছে ২০২১ সাল। এ বছর আইন-আদালতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। অপরাধ নির্মূলে চেষ্টা করা হয়েছে দূষ্টান্তমূলক রায় দেওয়ার। আবরার হত্যা, দীপন হত্যাকাণ্ড, ইভ্যালি কাণ্ড এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলার রায় সব মিলিয়ে বিদায়ী বছরের কিছু বিচারকার্য স্মৃতিতে লেগে থাকবে।

আবরার হত্যা মামলার রায়

এ বছরের সেরা আলোচিত মামলার রায় ছিল আবরার হত্যার রায়। ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর রাতে হত্যা করা হয় আবরারকে। এ ঘটনায় তারপরের দিন বুয়েটের ১৯ শিক্ষার্থীকে আসামি করে চকবাজার থানায় মামলা করেন আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ। আর সেই ঘটনার বিচার শেষে গত গত ৮ ডিসেম্বর বুয়েটের ২০ ছাত্রকে মৃত্যুদণ্ড আর ৫জনকে যাবজ্জীবন দেন ঢাকার এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান। এ মামলার রায় ঘোষণা করে বলা হয়, ‘নৃশংস হত্যাকাণ্ডের পুনরাবৃত্তি ঠেকাতে আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি এ রায়ে দেওয়া হয়েছে।’

দুই শিশু নিয়ে দেশি বাবা বিদেশি মায়ের আইনি লড়াই

২০০৮ সালে বিয়ে করে জাপানে স্বামী প্রকৌশলী ইমরানকে নিয়ে থাকা চিকিৎসক নাকানো এরিকো দাম্পত্য কলহের জেরে চলতি বছরের ১৮ জানুয়ারি বিচ্ছেদের আবেদন করা হয়। ইমরান দু‘মেয়েকি নিয়ে বাংলাদেশে চলে আসলেই বাধে বিপত্তি। মেয়েদের পাওয়ার জন্য করোনার ভেতরেই বাংলাদেশে চলে আসেন ওই জাপানি নারী নাকানো এরিকো। গত ১৫ ডিসেম্বর আপিল বিভাগ আদেশে বলেছেন, শিশু জেসমিন মালিকা ও লাইলা লিনা আগামী ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত জাপানি মা নাকানো এরিকোর কাছে থাকবেন। এই সময় শিশুদের নিয়মিত স্কুলে নিয়ে যেতেও বলা হয়েছে। তবে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টার মধ্যে যেকোনো সময় বাংলাদেশি বাবা ইমরান শরীফ শিশুদের সঙ্গে দেখা করতে পারবেন। ৩ জানুয়ারি পরবর্তী আদেশ দেবেন আপিল বিভাগ।

সাবেক প্রধান বিচারপতি সিনহার ১১ বছরের কারাদণ্ড

২০১৯ সালের ১০ জুলাই ক্ষমতার অপব্যবহার করে ভুয়া ঋণের মাধ্যমে চার কোটি টাকা স্থানান্তর ও আত্মসাৎ করার অভিযোগে ২০১৯ সালের ১০ জুলাই দুদকের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন বাদী হয়ে মামলা করেন সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহার বিরুদ্ধে। ফারমার্স ব্যাংকের (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক) ৪ কোটি টাকা ঋণ দুর্নীতির এ মামলায় চলতি বছরের ৯ নভেম্বর বিদেশে থাকা এ বিচারপতির ১১ বছর কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেন ঢাকার চার নম্বর বিশেষ জজ শেখ নাজমুল আলম।

বিচারক হারান তার বিচারিক ক্ষমতা

রাজধানীর বনানীর রেইনট্রি হোটেলে ধর্ষণের অভিযোগে করা চাঞ্চল্যকর মামলায় গত ১১ নভেম্বর তিনি রায় ঘোষণা করেন ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭-এর বিচারক ছিলেন মোছা. কামরুন্নাহার। ওই রায়ে পাঁচ আসামির সবাইকে খালাস করে দেয়া হয়। এছাড়া ধর্ষণের অভিযোগের ক্ষেত্রে ঘটনার ৭২ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলে পুলিশ যেন মামলা না নেয়, সে বিষয়ে পর্যবেক্ষণ দেন এই বিচারক। যদিও লিখিত রায়ে এ বিষয়ে কোনো কিছু উল্লেখ নেই। এরপরই চলতি বছরের ১৪ নভেম্বর কামরুন্নাহারের ফৌজদারি বিচারিক ক্ষমতা সাময়িকভাবে স্থগিত করেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। একই সঙ্গে তাকে এজলাসে না বসার নির্দেশ দেওয়া হয়।

আদালতপাড়ায় আলোচিত নায়িকা পরীমনি

ঢাকা বোট ক্লাবকাণ্ড, বাসায় র‌্যাবের অভিযান, মামলা, রিমান্ড, গ্রেফতার, জামিন, মুক্তি এমন সব ঘটনা নিয়ে চলতি বছরে আদালত পাড়ায় আলোচিত ছিলেন ঢাকাই সিনেমার নায়িকা পরীমণি। যার শুরুটা হয় চলতি বছরের ৮ জুন দলবেধে ঢাকা বোট ক্লাবে যাওয়া থেকে। বিদায়ী বছরের ৪ আগস্ট রাতে প্রায় চার ঘণ্টা অভিযান শেষে পরীমনিকে গ্রেফতার করা হয়। তিন দফায় দেয়া হয় সাত দিনের রিমান্ড। দীর্ঘ আইনি লড়াই শেষে ৩১ আগস্ট জামিন হয় তার। ২৬ দিন পর ১ সেপ্টেম্বর পরীমণি কারামুক্ত হন।

নাসির-তামিমা বিচারের কাঠগড়ায়

প্রথম স্বামী রাকিব হাসানকে রেখে তামিমা বিয়ে করেন আলোচিত ক্রিকেটার নাসির হোসাইনকে। এ ঘটনায় চলতি বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি মামলা করেন রাকিব। বিয়ে গোপন রেখে অন্যত্র বিয়ে এবং নাসির হোসাইনের নামে করেন মানহানি মামলা।মামলাটি তদন্ত করে গত ৩০ সেপ্টেম্বর পিবিআইর পুলিশ পরিদর্শক শেখ মো. মিজানুর রহমান তিনজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেন। যে মামলায় নাসির-তামিমা বর্তমানে জামিনে রয়েছেন।

দীপন হত্যার রায়, ৮ জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড

২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর ব্লগার ফয়সল আরেফিন দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। ২০১৮ সালের ১৫ নভেম্বর গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সহকারী পুলিশ সুপার মো. ফজলুর রহমান আট জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এরপর ২০১৯ সালের ১৩ অক্টোবর মামলাটির অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। চলতি বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মজিবুর রহমান রায় ঘোষণা করেন। রায়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলাম বা আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের আট সদস্যের মৃত্যুদণ্ড দেন আদালত। দণ্ডিতদের মধ্যে সেনাবাহিনীর বরখাস্তকৃত মেজর সৈয়দ জিয়াউল হক জিয়াসহ দুজন পলাতক রয়েছেন।

মুনিয়ারআত্মহত্যা’, আনভীরের অব্যাহতি

গত ২৬ এপ্রিল গুলশান-২ এর একটি ফ্ল্যাট থেকে মোসারাত জাহানে মুনিয়ার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মুনিয়ার বোন বাদি হয়ে গুলশান থানায় বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি সায়েম সোবহান আনভীরকে আসামি করে মামলা করেন। আর সেই মামলায় মুনিয়ার আত্মহত্যায় বসুন্ধরার এমডির সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি বলে চলতি বছরের ১৯ জুলাই আদালতে ‘ফাইনাল রিপোর্ট’ দাখিল করেন পুলিশ, তাই আদালতের মাধ্যমে দায়মুক্তি পান আনভীর।

জুলহাস-তনয় হত্যায় জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড

রাজধানীর কলাবাগানের লেক সার্কাস রোডের বাড়িতে জুলহাস মান্নান ও তার বন্ধু মাহবুব তনয়কে ২০১৬ সালের ১৫ এপ্রিল হত্যার দায়ে আট আসামির মধ্যে ছয়জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গত ৩১ আগস্ট ঢাকার সন্ত্রাস দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মজিবুর রহমানের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন।

শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার রায়

২০০২ সালের ৩০ আগস্ট তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাতক্ষীরায় কলারোয়ায় যান। সেখান থেকে ফেরার পথে তাঁর গাড়িবহর সন্ত্রাসী হামলা শিকার হয়। এ ঘটনায় সাবেক সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমানসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। সেই ঘটনার দীর্ঘ দুই যুগ পর গত ৪ ফেব্রুয়ারি দেওয়া রায়ে সাবেক সাংসদ হাবিবুলসহ ৫০ জনের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা হয়। এর মধ্যে বর্তমানে ৩৬ জন কারাগারে রয়েছেন ও ১৩ জন পলাতক।

আলোচিত আমিনবাজারে ছয় ছাত্রকে হত্যার রায়

২০১১ সালের ১৭ জুলাই শবেবরাতের রাতে আমিনবাজারের বড়দেশি গ্রামের কেবলার চরে ডাকাত সন্দেহে ছয় ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনায় ১৩ জনের মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন আদালত। এছাড়া আরও ১৯ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় দেন আদালত।

জোড়া খুনে তিনজনের মৃত্যুদণ্ড

রাজধানীর কাকরাইলের পাইওনিয়র গলির একটি বাসায় ২০১৭ সালের ১ নভেম্বরে আবদুল করিমের প্রথম স্ত্রী শামসুন্নাহার করিম ও তার ছেলে শাওনকে গলাকেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ২০১৮ সালের ১৬ জুলাইয়ে আবদুল করিমের দ্বিতীয় স্ত্রী শারমিন মুক্তা ও মুক্তার ভাই আল-আমিন ওরফে জনি এবং নিহতের স্বামী করিমের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল হয়। ২০২১ সালের ১৭ জানুয়ারি ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালত ওই তিন আসামির মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন।

ইভ্যালি পরিচালনার জন্য বোর্ড গঠন

গত ১৮ অক্টোবর আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিককে প্রধান করে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি পরিচালনার পাঁচ সদস্যের বোর্ড গঠন করে দেন হাইকোর্ট। ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির ব্যবস্থাপনায় গঠিত বোর্ড কী ধরনের কাজ করবে সে বিষয়ে নির্দেশনা দেন হাইকোর্ট। আদালত বলেন, লিখিত আদেশ পাওয়ার পরপরই তারা বোর্ড মিটিংয়ে বসবেন। কোথায় কী আছে সবকিছু বুঝে নেবেন। কোম্পানি যেভাবে চলে, সেভাবে প্রথমে বোর্ড মিটিং বসবে। তাদের (বোর্ড) দায়িত্ব হলো টাকাগুলো কোথায় আছে, কোথায় দায় আছে, তা দেখা। কমিটি বসে বিষয়গুলো দেখবে।

ব্লগার অভিজিৎ হত্যা মামলার রায়

২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি অমর একুশে গ্রন্থমেলা প্রাঙ্গণ থেকে ফেরার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় কুপিয়ে হত্যা করা হয় অভিজিৎকে। হামলায় অভিজিতের স্ত্রী রাফিদা আহমেদও গুরুতর আহত হন। এ ঘটনায় অভিজিতের বাবা অধ্যাপক অজয় রায় বাদী হয়ে রাজধানীর শাহবাগ থানায় হত্যা মামলা করেন। বিদায়ী বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মজিবুর রহমান অভিজিৎ হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেন। রায়ে পাঁচ জঙ্গিকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

পি কে হালদারসহ ২০ জনের সম্পদ জব্দ

বিদায়ী বছরের অন্যতম আলোচিত ঘটনা পি কে হালদারসহ ২০ জনের সম্পদ জব্দের নির্দেশ।চলতি ২১ জানুয়ারি প্রায় তিন হাজার ৬০০ কোটি টাকা পাচারের ঘটনায় এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদারসহ (পি কে হালদার) ২০ জনের সম্পদ, পাসপোর্ট ও ব্যাংক হিসাব জব্দের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। যা এ বছর খুব আলোচনার সৃষ্টি করে।

এছাড়া ২০২০ সালের ২ সেপ্টেম্বর নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে এক নারীকে বিবস্ত্র করে মোবাইলে ভিডিও ধারণ করেন দেলোয়ারসহ অভিযুক্ত আসামিরা। পরে সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ ঘটনায় ধর্ষণ, নির্যাতন এবং পর্নোগ্রাফি মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয় আসামি দেলোয়ার হোসেন দিলু ও মোহাম্মদ আলী ওরফে আবু কালামকে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) রাজারবাগ দরবারের পীর দিল্লুর রহমান, তার সহযোগিদের কার্যক্রম জঙ্গিদের সাদৃশ্য বলে হাইকোর্টে এক প্রতিবেদন পেশ করেন। ওই প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ৫ ডিসেম্বর মামলার তদন্তের স্বার্থে রাজারবাগ দরবার শরীফের পীরসহ চারজনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দিতে পারবে বলে আদেশ দেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে রাজারবাগ দরবার শরীফ ও পীরের কর্মকাণ্ডের ওপর সার্বক্ষণিক নজরদারি করতে সিটিটিসিকে নির্দেশ দেন আদালত।

এ বছরের আরেকটি আলোচিত বিষয় হল ২০২১ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি গ্রামীণ টেলিকমে কর্মী নিয়োগের বিষয়ে আদালতের আদেশ বাস্তবায়ন না করা নিয়ে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনুসকে হাইকোর্টের তলব। পরে নোবেলজয়ী ড. ইউনুস ভার্চুয়ালি হাজির হয়ে আদালত অবমাননার ব্যাখ্যা দেন।

গত ২১ জানুয়ারি ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড থেকে পাঁচ লাখ টাকা ও তার বেশি অর্থঋণ নিয়ে খেলাপি হওয়া এমন ২৮০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে তলব করেন হাইকোর্ট। যা বিদায়ী বছরের অন্যতম একটি আলোচিত ঘটনা।

দুর্নীতির অভিযোগে ২০২০ সালের ২০ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গাড়িচালক আবদুল মালেক ওরফে ড্রাইভার মালেককে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১। অস্ত্র আইনে হওয়া মামলায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গাড়িচালক আবদুল মালেক ওরফে বাদলের পৃথক দুই ধারায় ১৫ বছর করে মোট ৩০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তবে উভয় সাজা একসঙ্গে চলবে। সেক্ষেত্রে ১৫ বছর সাজা ভোগ করতে হবে মালেককে।

  সালতামামি

জাপানি মায়ের কাছেই থাকবে ২ শিশু



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জাপানি মা নাকানো এরিকোর জিম্মায় দুই শিশু জেসমিন মালিকা ও লাইলা লিনাকে রাখার আদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসাথে মেয়েদের নিয়ে জাপান যেতে পারবেন মা। এছাড়া বাবা ইমরান শরীফ যে মামলা করেছিলেন তা খারিজ করে দেন আদালত।

নাবালিকা দুই শিশু কোথায় থাকলে কল্যাণ হবে সে দিক বিবেচনায় রেখে এ রায় দেয়া হয়। রোববার দুপুরে রায় ঘোষণা করেন ঢাকার দ্বিতীয় অতিরিক্ত সহকারী জজ ও পারিবারিক আদালতের বিচারক দুরদানা রহমান।

এর আগে ২২ জানুয়ারি দুই পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হয়। যুক্তিতর্ক শেষে রায় ঘোষণার জন্য ২৯ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছিলেন একই আদালত। এরই ধারাবাহিকতায় আজ রায় দেয়া হলো। তারও আগে ১৫ জানুয়ারি তাদের বক্তব্য শুনে তা রেকর্ড করেন আদালত।

২০০৮ সালে জাপানি চিকিৎসক নাকানো এরিকোর সাথে বাংলাদেশী প্রকৌশলী ইমরান শরীফের বিয়ে হয়। দাম্পত্য কলহের জেরে ২০২০ সালের শুরুতে বিচ্ছেদের আবেদন করেন এরিকো। এরপর ইমরান স্কুলপড়ুয়া বড় দুই মেয়েকে নিয়ে বাংলাদেশে চলে আসেন। আর ছোট মেয়ে থেকে যান জাপানে মা এরিকোর সাথে।

তবে ওই দুই মেয়েকে জিম্মায় পেতে মহামারীর মধ্যে গত বছরের জুলাইয়ে বাংলাদেশে আসেন এ জাপানি নারী। তিনি হাইকোর্টে রিট করলে তাদের সমঝোতায় আসতে বলেন বিচারক। তবে ওই দম্পতি সমঝোতায় না আসায় কয়েক মাস ধরে শুনানির পর হাইকোর্ট দুই সন্তানকে বাবার হেফাজতে রাখার সিদ্ধান্ত দেন। পাশাপাশি মা যাতে সন্তানদের সাথে দেখা করতে পারেন, তা নিশ্চিত করতে বাবাকে খরচ দিতে বলা হয়।

এরপর হাইকোর্টের ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন নাকানো এরিকো। পরে আপিল বিভাগ এক আদেশে শিশু দুটিকে মায়ের জিম্মায় রাখার নির্দেশ দিলেও বাবা তা না মানায় বিচারকরা উষ্মা প্রকাশ করেন। পরে আদালত শিশু দুটিকে বাবার হেফাজত থেকে এনে তাদের সাথে কথা বলেন এবং পরে মায়ের হেফাজতে দেয়ার আদেশ দেন।


এরপর এই দুই মেয়ে কার জিম্মায় থাকবে তার নিষ্পত্তি পারিবারিক আদালতে হবে এবং তার আগ পর্যন্ত দুই শিশু তাদের মায়ের কাছেই থাকবে বলে সিদ্ধান্ত দেন আপিল বিভাগ। গত বছরের ১৩ ফেব্রুয়ারি এই আদেশ দেয়া হয়। এরপর আপিল বিভাগ থেকে মামলাটি পারিবারিক আদালতে যায়।

এসব ঘটনার মধ্যে গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর রাতে দুই সন্তান নিয়ে জাপানে যাওয়ার জন্য ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যান এরিকো নাকানো। আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে সন্তানদের নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করায় তাকে বিমানবন্দর থেকে পুলিশ ফিরিয়ে দেয়।

এ ঘটনায় ২৯ ডিসেম্বর দুই সন্তানের বাবা ইমরান শরিফ ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাতুল রাকিবের আদালতে মামলা করেন। আদালত বাদির জবানবন্দি গ্রহণ করে পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

  সালতামামি

;

কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

  • Font increase
  • Font Decrease

কুষ্টিয়া শহরের মোস্তাফিজুর রহমান কর্নেলকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে তিন জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরের কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- কুষ্টিয়া শহরের পূর্ব মজমপুর ঝাউতলা এলাকার ইউসুফ হোসেন ওরফে মুক্তারের ছেলে পারভেজ হোসাইন ওরফে সৌরভ, পূর্ব মজমপুর খন্দকার বাড়ি এলাকার খন্দকার হামিদুজ্জামান মলিনের ছেলে খন্দকার মিহিরুজ্জামান ও কুমারখালী উপজেলার বাড়াদি বানিয়াপাড়া এলাকার তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে সাজ্জাদুল বারী সবুজ।

রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত তিন আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষণার পর পরই তাদের পুলিশ পাহারায় জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। এ মামলায় নাঈমুর সাদিক পার্থ নামে এক আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, পূর্বশত্রুতা ও প্রেমঘটিত বিষয়কে কেন্দ্র করে ২০১২ সালের ২৬ জানুয়ারি রাতে কুষ্টিয়া শহরের কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী সড়কের মন্ডল ফিলিং স্টেশনের উত্তর পাশে মাঠে মোস্তাফিজুর রহমান কর্নেলকে কুপিয়ে হত্যা করেন আসামিরা। দণ্ডপ্রাপ্ত তিন আসামি আদালতের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছিলেন।

এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই আসাদুর রহমান বাবু বাদী আসামিদের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। নিহত মোস্তাফিজুর রহমান কর্নেল পূর্বমজমপুর এলাকার মতিয়ার রহমানের ছেলে।

মামলার তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম আসামিদের বিরুদ্ধে ২০১২ সালের ২৯ জুন আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এরপর আদালত এ মামলায় ৯ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেন।

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী বলেন, পূর্বশত্রুতা ও প্রেমঘটিত বিষয়ের জেরে হত্যা মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় তিন আসামিকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রায় ঘোষণার সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন। এ মামলার অপর এক আসামিকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

  সালতামামি

;

হাইকোর্টের রায়ে সন্তানের অভিভাবক হিসেবে মায়ের স্বীকৃতি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
হাইকোর্টের রায়ে সন্তানের অভিভাবক হিসেবে মায়ের স্বীকৃতি

হাইকোর্টের রায়ে সন্তানের অভিভাবক হিসেবে মায়ের স্বীকৃতি

  • Font increase
  • Font Decrease

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষাসহ সব ধরনের ফরম পূরণে সন্তানের অভিভাবক হিসেবে মাকেও স্বীকৃতি দিয়ে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। আজ মঙ্গলবার বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম, অ্যাডভোকেট আইনুন্নাহার লিপি ও অ্যাডভোকেট আয়েশা আক্তার। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশগুপ্ত।

এর আগে গত ১৬ জানুয়ারি সন্তানের অভিভাবক হিসেবে মা স্বীকৃতি পাবেন কিনা—এ বিষয়ে শুনানি শেষে রায়ের জন্য আজকের দিন ধার্য করা হয়।

রায়ের পর অ্যাডভোকেট আইনুন্নাহার সিদ্দিকা বলেন, হাইকোর্ট রায়ে বলেছেন, পিতৃপরিচয়হীন সন্তান, যৌনকর্মীদের সন্তান যাদের বাবার পরিচয় নেই, তারা শুধু মায়ের নাম দিয়েই ফরম পূরণ করতে পারবেন। সংবিধানে সমতার কারণে বাবা অথবা মায়ের পরিচয় থাকলেই যে কোনো ফরম পূরণ বা রেজিস্ট্রেশন পূরণ করার অধিকার পাবে।

অ্যাডভোকেট আয়েশা আক্তার বলেন, আজকের রায়ের ফলে এসএসসি, এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ, পাসপোর্টের ফরম পূরণসহ সব ফরম পূরণে বাবা অথবা মা অথবা আইনগত অভিভাবকের নাম লেখা যাবে। এই রায়ের ফলে বাবা-মায়ের উভয়ের নাম লেখার বাধ্যবাধকতা থাকল না। শুধু মায়ের নাম লিখেও ফরম পূরণ করা যাবে।

  সালতামামি

;

বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড: নেপথ্যের কুশীলবদের খুঁজতে কেন কমিশন নয়, রুল



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তার পরিবারের সদস্যদের হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যের কারিগরদের খুঁজে বের করতে তদন্ত কমিশন কেন নয় জানতে চেয়ে ৪ সপ্তাহের রুল জারি করেছে হাইকোর্ট।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।

বঙ্গবন্ধু হত্যার পেছনের কারিগরদের খুঁজে বের করতে কমিশন গঠনে সরকারের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তাও জানতে চান হাইকোর্ট।

রিটকারীর আইনজীবী সুবীর নন্দী দাস জানান, মহাত্মা গান্ধী এবং কেনেডি হত্যার পেছনে কারা ছিল তা জানতে অন্যান্য দেশে কমিশন হলেও এদেশে কোনো কমিশন হয়নি। এ বিষয়ে ৪ সপ্তাহের মধ্যে আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব, মন্ত্রিপরিষদ সচিব এবং স্বরাষ্ট্র সচিবকে রুলের জবাব দিতে বলেছেন হাইকোর্ট।

২০২১ সালের ২৫ অক্টোবর রিটের পর সুবীর নন্দী দাস জানিয়েছিলেন, রিট আবেদনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনায়কদের হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে তদন্ত কমিশন গঠনের নজির যুক্ত করা হয়েছে। এ ছাড়াও ১৯৮২ সালে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সদস্যদের গঠিত বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের তদন্ত কমিশনের প্রাথমিক প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এ বিষয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্মম হত্যাকাণ্ডের ষড়যন্ত্র এবং তৎপরবর্তী পদক্ষেপসমূহ সম্পূর্ণ পর্যালোচনা ও নিরীক্ষার লক্ষ্যে একটি স্বাধীন জাতীয় কমিশন গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয়।

১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট নির্মমভাবে সপরিবারে খুন করা হয় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। এ ঘটনায় সরাসরি জড়িতদের বিচার হলেও নেপথ্যের কুশীলবদের বিচার হয়নি। কয়েক বছর ধরেই রাজনীতির মাঠে নতুন উত্তাপ ছিল বঙ্গবন্ধুর খুনের পেছনে কারা জড়িত তা খুঁজে বের করতে কমিশন করবে সরকার।

আওয়ামী লীগ সরাসরি এ হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী করে জিয়াউর রহমানকে। এমন বাস্তবতায় হাইকোর্টে রিট করেন ৪ আইনজীবী। রিটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে একটি স্বাধীন তদন্ত কমিশন গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয়।

  সালতামামি

;