দক্ষিণাঞ্চলবাসীর জন্য যেমন ছিলো ২০২১ সাল

  সালতামামি



জহির রায়হান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বরিশাল
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

শান্তিপ্রিয় বাসযোগ্য অঞ্চল হচ্ছে সম্ভাবনাময় বরিশাল তথা গোটা দক্ষিণাঞ্চল। কিন্তু ২০২১ সাল জুড়ে দক্ষিণাঞ্চলে ছিলো করোনা, ডায়রিয়ার প্রকোপ, দূর্ঘটনার দুঃসংবাদ ও সম্ভাবনাময় আনন্দের বার্তা। বছরের শেষে এসে যুক্ত হল ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে এমভি অভিযান-১০ লঞ্চে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা। যে ঘটনা দেশ বিদেশের শিরোনাম হয়েছে এবং কেঁদেছে গোটা দক্ষিণাঞ্চলবাসী। 

যেসব আলোচিত ঘটনাকে ঘিরে বরিশাল তথা দক্ষিণাঞ্চল বার বার সংবাদের শিরোনাম হয়েছে তারই এক ঝলক পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল-

ডায়রিয়ার প্রকোপ: বছরের শুরুর দিনই বরিশাল বিভাগে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। ২৬ এপ্রিলের মধ্যে আক্রান্ত হয় ৪০ হাজারের বেশি মানুষ। স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, এর মধ্যে ২০ থেকে ২৬ এপ্রিল এক সপ্তাহে আক্রান্ত হয়েছিল ১০ হাজার ৭ জন। এপ্রিল মাসে সরকারি হিসাবে মারা যান ১১ জন। তবে বেসরকারি হিসাবে মৃত্যুর সংখ্যা ৩৩ জনের বেশি।

করোনা আতঙ্কের মাস জুলাই: বিদায়ী জুলাইয়ে ভয়ঙ্কর সময় পার করে বরিশাল বিভাগের মানুষ। করোনা সংক্রমণ আর মৃত্যু দুটোই চূড়ান্তে পৌঁছায় এই মাসে। নমুনা বিবেচনায় ৩৯ শতাংশ রোগী শনাক্ত হয় জুলাই মাসে। আর মারা যান ৪৪ দশমিক ১৩ শতাংশ রোগী। স্বাস্থ্য বিভাগের হিসাবে, জুলাইয়ে বরিশাল বিভাগে শনাক্ত হয় ১৩ হাজার ১৪৮ জন। এই মাসে করোনা পজিটিভ ও উপসর্গ নিয়ে প্রাণহানি হয় ৪০১ জনের। অপরদিকে আগস্টে শনাক্ত হয় ১০ হাজার ৬১১ রোগী। আর পজিটিভ রোগী মারা যায় ১৮৫ জন। গত ৭ জুলাই এক দিনে করোনা শনাক্ত হয় সর্বোচ্চ ৬২২ জনের। এরপর ১১ জুলাই এ সংখ্যা হয় ৭১০ ও ১৩ জুলাই ৮৭৯। আর ১৯ জুলাই ছিল সবচেয়ে ভয়াবহ দিন। এদিন সংক্রমণের সব রেকর্ড ভঙ্গ করে রেকর্ড ৮৯১ জন শনাক্ত হয়। ৩১ জুলাই পর্যন্ত বিভাগে করোনায় মারা গেছেন ৪৬৯ জন। তাঁদের মধ্যে দ্বিতীয় ঢেউ শুরুর পর মে থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২০৭ জনের, যা মোট মৃত্যুর ৪৪ দশমিক ১৩ শতাংশ। আর শুধু জুলাইয়ে মৃত্যু হয়েছে ১৫৮ জনের। সেপ্টেম্বর থেকে করোনা শনাক্ত ও মৃত্যুর সূচক নামতে থাকে।

বরিশাল সদর ইউএনওর বাসভবনে হামলা: গত ১৮ আগস্ট রাতে বরিশাল সদর উপজেলার ইউএনও অফিস কম্পাউন্ডে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রীর শুভেচ্ছা ব্যানার নামাতে গিয়ে সিটি করপোরেশনের কর্মী ও পরে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এতে ইউএনওর বাসভবনে হামলার সময় আনসার সদস্যদের গুলিতে আওয়ামী লীগ ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন নেতা কর্মী গুলিবিদ্ধ হন। এ ঘটনায় ইউএনও এবং কোতোয়ালি থানার ওসিসহ দুই প্রশাসন মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহকে প্রধান আসামি দুইটি মামলা করা হয়। ঘটনার তিন দিন পর এ ঘটনায় প্রশাসনের সঙ্গে মেয়রসহ আওয়ামী লীগের নেতাদের সমঝোতা বৈঠকে বিষয়টি নিরসন হয়। 

স্বপ্নের পায়রা সেতু উদ্বোধন: দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের বহুল প্রতীক্ষিত পায়রা সেতু উদ্বোধন হয় ২৪ অক্টোবর। এদিন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে স্বপ্নের সেতুটি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনের পরই সেতুর দুই পাড়ে হাজারো মানুষ উল্লাসে ফেটে পড়েন। পরিবর্তন ঘটে কুয়াকাটাসহ গোটা দক্ষিণাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থার। 

এমভি অভিযান-১০ লঞ্চ ট্র্যাজেডি: বছরজুড়ে কমবেশি আনন্দের উচ্ছ্বাস থাকলেও বছরের শেষ মাসটি ছিল চরম বেদনাদায়ক। গত ২৩ ডিসেম্বর গভীররাতে ঝালকাঠির সুগন্ধা নদী পার হওয়ার সময় এমভি অভিযান-১০ লঞ্চে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ঢাকা থেকে বরগুনাগামী লঞ্চটির ৪৩ যাত্রীর প্রাণহানির খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। হাসপাতালে ভর্তি আছেন দগ্ধ ৮৫ জন। নিখোঁজ রয়েছেন আরো ৪৬ জন। এ দুর্ঘটনায় স্বজনহারাদের আহাজারি, দগ্ধদের আর্তনাদে ভারী হয়ে আছে দক্ষিণের জনপদ। যা নৌপথে চলাচলে যাত্রীদের মাঝে হতাশ সৃষ্টি করছে।

  সালতামামি

গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকলেই দেশের উন্নতি হয়: প্রধানমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা জনগণের জন্য কাজ করছি। আমাদের ভোট দিয়ে ২০১৪ সালে নির্বাচিত করেছে জনগণ। ২০১৮ সালে ভোট দিয়ে আবার নির্বাচিত করেছে। এর একমাত্র কারণ আমরা তাদের উন্নয়নে কাজ করেছি। কাজেই গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকলেই দেশের মানুষের উন্নতি হয়, এটাই বাস্তবতা।

সোমবার (৩০ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর রমনা পার্কে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ ও রাজউকের ১২টি প্রকল্প উদ্বোধনে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, দেশে গণতন্ত্র ছিল বলেই উন্নয়নগুলো সম্ভব হয়েছে। এই ধারা না থাকলে এত উন্নত হতো না। আমরা পরমাণু শক্তিতে যুক্ত হতে পেরেছি। এ পরমাণু দিয়ে আমরা বোমা বানাবো না, বিদ্যুৎ উৎপাদন করবো।

শেখ হাসিনা বলেন, ২০২৩ সাল হবে মন্দার বছর, অর্থনীতিবিদেরা এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন। দেশে যেন এর ধাক্কা না লাগে, সেজন্য এক ইঞ্চি জমিও অনাবাদী না থাকে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা মহামারির পর রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিয়েছে। উন্নত দেশগুলো যখন হিমশিম খাচ্ছে, তারপরও আমাদের অর্থনীতির গতিধারা অব্যাহত রেখেছি আমরা। প্রবৃদ্ধি ৭ ভাগ অর্জন করতে পেরেছি।

  সালতামামি

;

ফোনআলাপ ফাঁস: আবু আসিফের নিখোঁজ নাটক!



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আবু আসিফ

আবু আসিফ

  • Font increase
  • Font Decrease

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনে উপ-নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু আসিফ আহমেদ দুদিন যাবত নিখোঁজ আছেন বলে পরিবারের অভিযোগের পরেরদিন ঘটনার নতুন মোড় নিয়েছে। ইতোমধ্যে একটি অডিও ভাইরাল হয়েছে। যাতে শুক্রবার আবু আসিফের স্ত্রী মেহেরুন্নেসা তার এক কর্মচারি মিটুকে ফোন করে আসিফকে কাপড় চোপড় নিয়ে বের হয়ে যাওয়ার জন্য বলছে। এই ঘটনার দুইদিন পর সাংবাদিকদের কাছে আবু আসিফের স্ত্রী অভিযোগ করেন যে আসিফকে পাওয়া যাচ্ছে না। এনিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

রোববার (২৯ জানুয়ারি) দুপুরে সাংবাদিকদের কাছে আবু আসিফের স্ত্রী মেহেরুন্নিছা অভিযোগ করেন তার স্বামী ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনে উপ-নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু আসিফ আহমেদকে দুদিন যাবত পাওয়া যাচ্ছে না। এসময় তিনি আরো বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে আসিফকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি কোথায় এবং কী অবস্থায় আছে তা বুঝতে পারছি না। প্রতিনিয়ত আমাদের হুমকি-ধামকি দেওয়া হচ্ছে। বাড়িতে পুলিশ এসে অযথা তল্লাশি করে হয়রানি করছে। বাড়ির সামনেও কিছু পুলিশ আসা যাওয়া করছে। তাদের ভয়ে আমি নিজেই পালিয়ে ছিলাম। আজকের মধ্যে খোঁজ না পেলে রাতেই একটা কিছু করবো। এসময় তিনি রিটার্নি কর্মকর্তা জেলা পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করবেন বলেও জানান।

এই ঘটনার পর রোববার রাতে আবু আসিফের স্ত্রী মেহেরুন্নেসার একটি অডিও কথোপকথন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। সেখানে মেহেরুন্নেসা মিঠু থনামের এক কর্মচারীকে কল করে তার স্যার আসিফ কোথায় আছেন জানতে চায়। পরে মিঠু বলেন স্যার বাসায়। পরে তাকে সব জামা কাপড় দিয়ে তারাতাড়ি দিয়ে যে। কেউ যেন না জানে সে কোথায় গেছে। তারাতাড়ি বাসার ক্যামেরা অফ করে দে। স্যার যাওয়ার ১০ মিনিট পরে ক্যামেরা অন করতে বলেন মেহেরুন্নেসা।

নিচে কথাগুলো হুবহু তুলে দেয়া হল...

মেহেরুন্নেসা : হ্যালো মিঠু,

মিটু : জি বলেন, 

মেহেরুন্নেসা : স্যার কই স্যার

মিঠু : স্যার আছেতো বাসায়,

মেহেরুন্নেসা : তাড়াতাড়ি স্যাররে ফোনটা দে দৌড় দে

জামা কাপড় গেঞ্জি জাইনগা, জুতা মোজা শীতের কাপড় ইতা দিয়া দে।

মিঠু : দিতাছি দিতাছি।

মেহেরুন্নেসা : তাড়াতাড়ি, তাড়াতাড়ি, কেউ যাতে না জানে। স্যার কই গেছে।

মিঠু : আইচ্ছা

মেহেরুন্নেসা : হ্যালো ক্যামেরার লাইন বন্ধ কর বাসার,

মিছু : আইচ্চা আইচ্চা ঠিক আছে।

মেহেরুন্নেসা : স্যার গিয়া সারলে ১০ মিনিট পরে ক্যামেরার লাইন ওপেন করবে। ক্যামেরা বন্ধ কর।

মিঠু : ঠিক আছে, ঠিক আছে।

এই ঘটনার পর থেকে আসিফকে আর কোথায় দেখা যায়নি। এর আগে আবু আসিফ স্বাভাবিকভাবেই তার নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছিল। তবে বিষয়টিকে নিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। কেউ কেউ আসিফের স্ত্রীকে আইনের আওতায় নেয়ার দাবি জানিয়েছেন। 

এই বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনে উপ-নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু আসিফ আহমেদ এর স্ত্রী মেহেরুন্নেসার বক্তব্য জানতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি।  তার ব্যবহৃত মোবাইলে কর করেও সেটি বন্ধপাওয়া যায়।

১ ফেব্রুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল ও আশুগঞ্জ) আসনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এতে পাঁচ প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। তারা হলেন- বিএনপির বহিষ্কৃত পাঁচবারের সাবেক সাংসদ আব্দুস সাত্তার ভূইয়া, জাতীয় পার্টির প্রার্থী আব্দুল হামিদ ভাষানী, সাবেক সংসদ সদস্য জিয়াউল হক মৃধা, জাকের পার্টির জহিরুল ইসলাম জুয়েল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু আসিফ আহমেদ। এদের মধ্যে জিয়াউল হক মৃধা প্রতীক বরাদ্দের পর বিবৃতি দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।

  সালতামামি

;

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া, আরিচা-কাজিরহাটে ফেরি চলাচল বন্ধ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঘন কুয়াশার কারণে যমুনা নদীর আরিচা-কাজিরহাট রুটে ও পদ্মার পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে।

রোববার (২৯ জানুয়ারি) রাত ১১টা থেকে এ দুই নৌপথের ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয় বলে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন সংস্থা (বিআইডব্লিউটিসি) জানিয়েছে।

বিআইডব্লিউটিসি আরিচা আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-মহাব্যবস্থাপক শাহ মো. খালেদ নেওয়াজ বলেন, ঘন কুয়াশায় মার্কিন বাতি অস্পষ্ট হয়ে গেলে দুর্ঘটনা এড়াতে রাত ১১টায় পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও আরিচা-কাজিরহাট নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এদিকে, ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ও আরিচা ঘাট, রাজবাড়ির দৌলতদিয়া এবং পাবনার কাজিরহাট ফেরিঘাটে আটকা পড়েছে এই রুটের বেশ কিছু যানবাহন।

এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন এসব গাড়ির যাত্রী, চালক ও সহযোগীরা।

  সালতামামি

;

আইএমএফ ৪.৫ বিলিয়ন ডলার ঋণ অনুমোদন দিতে পারে আজ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) নির্বাহী বোর্ড সভা আজ সোমবার (৩০ জানুয়ারি)। এই সভায় বাংলাদেশের ৪.৫ বিলিয়ন ডলারের ঋণ প্রস্তাব অনুমোদন হতে বলে আশা করা হচ্ছে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তারা ইঙ্গিত পেয়েছেন যে, বহুপক্ষীয় ঋণদাতার বোর্ড বাংলাদেশের ঋণের অনুরোধ অনুমোদন করতে নীতিগতভাবে সম্মত হয়েছে।

রাহুল আনন্দের নেতৃত্বে একটি আইএমএফ দল প্রোগ্রামের বিশদ বিবরণ বের করতে গত ২৬ অক্টোবর থেকে ৯ নভেম্বর ঢাকা সফর করেছেন। এরপর আইএমএফ-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট আন্তোয়েনেট মনসিও সায়েহ ১৪-১৮ জানুয়ারি বাংলাদেশ সফর করেন এবং তার সফরের সময় তিনি যে অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং সামাজিক অগ্রগতির প্রত্যক্ষ করেছেন তার প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, এটি সারা বিশ্বে একটি প্রভাব ফেলেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও অভিনন্দন জানিয়েছেন সায়েহ।

আইএমএফ এর সাবেক অর্থনীতিবিদ ড. আহসান এইচ মনসুর বলেছেন, অর্থ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ব্যাংক, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) এবং অন্যদের সঙ্গে যে পরিদর্শন ও আলোচনা হয়েছে তা জানা যায়।

এছাড়া বৈশ্বিক ঋণদাতা দেশটিকে ৪.৫ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেয়ার জন্য একটি চুক্তিতে পৌঁছেছে। তিনি বলেন, আইএমএফ ঋণের প্রথম কিস্তি শুধু আনুষ্ঠানিকতার অপেক্ষায় রয়েছে।

এর আগে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আমরা যেভাবে চেয়েছিলাম ঠিক সেভাবে ঋণ পাচ্ছি। বাংলাদেশের জন্য মোট ৪.৫ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেয়া হবে। ২০২৬ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত সাতটি কিস্তিতে এই পরিমাণ অর্থ বিতরণ করা হবে।

এছাড়া ৪৪৭.৭৮ মিলিয়ন ডলারের প্রথম কিস্তি ফেব্রুয়ারিতে দেয়া হবে। অবশিষ্ট পরিমাণ ৬৫৯.১৮ মিলিয়ন ডলার ছয়টি সমান কিস্তিতে দেয়া হবে।

সূত্র জানিয়েছে, ঋণের সুদের হার ম্যাচুরিটির সময় বাজারের হারের ওপর নির্ভর করবে। এছাড়া অর্থ মন্ত্রণালয় হিসাব করেছে যে এই হার প্রায় ২.২ শতাংশ হবে।

  সালতামামি

;