জিতে গেল বাংলাদেশ

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার



সোহেল মিয়া, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
পদ্মা সেতু

পদ্মা সেতু

  • Font increase
  • Font Decrease

অপেক্ষার প্রহর শেষ। স্বপ্ন এখন বাস্তব। সমালোচক আর ষড়যন্ত্রকারীদের মুখে ছাঁই ঢেলে দিয়ে নির্মাণ হয়ে গেল পদ্মা সেতু। এই পদ্মা সেতু নির্মাণের পিছনে রয়েছে এক আত্নপ্রত্যায়ী মহিয়সী নারীর দৃঢ় সাহসিকতার গল্প। সেই গল্প যেন রুপকথার মতো। দেখতে দেখতে কেটে গেল কয়েকটি বছর। তারপর অবশেষে গল্প হলো সত্য।

দেশী-বিদেশি ষড়যন্ত্রকারীদের সমালোচনার মুখে যখন পদ্মা সেতু নির্মাণ অবাস্তব সেই সময়েও নিজের জায়গা থেকে দৃঢ় সাহসিকতা আর মনোবল নিয়ে অটুট ছিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গকন্যা শেখ হাসিনা। কড়া সমালোচনার মধ্যেই তিনি ঘোষণা দিলেন ‘ নিজস্ব অর্থায়নেই হবে পদ্মা সেতু’। হয়েছেও তাও। সব কিছু পিছনে ফেলে সগৌরবে মাথা উচুঁ করে খরস্রোতা পদ্মার বুকে দাঁড়িয়ে আছে কোটি মানুষের স্বপ্ন। হেরে গিয়েছে ওরা; জিতেছে বাংলাদেশ।

একটি সেতুকে কেন্দ্র করে যত আলোচনা-সমালোচনা হলো পৃথিবীতে অন্য আর কোন সেতু নিয়ে এতো আলোচনা হয়েছে কিনা সন্দেহ আছে। একটি গোষ্ঠি স্বপ্নের পদ্মা সেতু নির্মাণের শুরু থেকেই ষড়যন্ত্র আর মিথ্যাচার করে আসছিল। কিন্তু তাদের সেই মিথ্যাচার আজ ধরা পড়েছে। তারা এখন কোটি কোটি বাঙালির কাছে ঘৃণার পাত্র।

ষঢ়যন্ত্রকারীরা বুঝতে পারেনি বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আত্নবিশ্বাস পাহাড় সমান। ঠুনকো অভিযোগে শেখ হাসিনাকে দমিয়ে রাখা সম্ভব নয়। শত বাধা-বিপত্তি আর প্রতিকূলতার মুখোমুখি হয়েও দৃঢ় সাহসিকতার সাথে নিজেকে অটল রেখেছিলেন পদ্মা সেতু নির্মাণের ক্ষেত্রে। সব কিছু ভেদ করে এখন বিজয়ের হাতছানি দিচ্ছে স্বপ্নের পদ্মা সেতু। বিশ্বকে জানান দেওয়া হচ্ছে বাঙলির সক্ষমতার কথা। বাঙালি জাতি মাথা নত করার নয় সেটা আবারও পদ্মা সেতু নির্মাণের মাধ্যমে প্রমাণ করে দিলেন দেশরত্ন শেখ হাসিনা।


দুর্নীতি চেষ্টার ভিত্তিহীন অভিযোগ এনে বিশ্বব্যাংকের মুখ ফিরিয়ে নেওয়া, রাজনৈতিক মতভেদ, গুজব, প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ নানা প্রতিবন্ধকতা জয় করে প্রমত্তা পদ্মার বুকে এখন মাথা উচুঁ করে সগৌরবে দাঁড়িয়ে রয়েছে দেশের ইতিহাসের দীর্ঘতম সেতু। এই সেতুই প্রমাণ করে দেয় বাঙালিরা কখনো হারতে জানেনা। বাঙালিদের ইতিহাস সমৃদ্ধে ভরা গৌরবের ইতিহাস। বাঙালি ও বাংলাদেশ এখন বিশ্বের কাছে নতুন এক সফল সংগ্রামের নাম।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটারের দীর্ঘ এই পদ্মা সেতু নির্মাণ করে শেখ হাসিনা বিশ্বকে জানিয়ে দিলেন আমাদের সক্ষতার কথা। এই সেতুর উদ্বোধনের মাহেন্দ্রক্ষণকে ঘিরে এখন দেশে চলছে আনন্দের বন্যা। দেশ জুড়ে চলছে উৎসব। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হচ্ছে খুবই জমকালো। সারা দেশের মানুষ যাতে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখতে পারেন সেজন্য দেশের প্রতিটি জেলায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রিয় শিক্ষার্থীদেরও দেখানো হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। সারা বিশ্বের আজ চোখ থাকবে বাংলাদেশে। তারা দেখবে বাংলাদেশের নতুন জয়ের জমকালো চোখ ধাঁধাঁনো মহাযজ্ঞ।

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

নৌযানে ভাড়া সমন্বয়ে আট প্রস্তাব ওয়ার্কিং কমিটির



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জ্বালানি তেলের দাম পুনর্নির্ধারণের পরিপ্রেক্ষিতে নৌযানে যাত্রী ভাড়া সমন্বয়ের লক্ষ্যে আটটি প্রস্তাব দিয়েছে ওয়ার্কিং কমিটি। কমিটি ১৯, ২২, ২৫, ৩০, ৩৫, ৪০, ৪২ অথবা ৫০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর জন্য সরকারের কাছে প্রস্তাব দিয়েছে।

সোমবার (৮ আগস্ট) রাতে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম খান সংবাদমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে, দুপুরে সাত সদস্যের ওয়ার্কিং কমিটি গঠন করেন নৌ পরিবহন সচিব মো. মোস্তফা কামাল।

এর আগে, নৌপরিবহন সচিব জানিয়েছিলেন, মালিকদের প্রস্তাবিত ভাড়ার হার বেশি। এজন্য কমিটি করা হয়েছে। কেউ যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেজন্য কাজ করবে ওয়ার্কিং গ্রুপ। আজ কমিটি পুনরায় বসবে। যা ১০ তারিখের মধ্যে গেজেট প্রকাশ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, প্রজ্ঞাপন হওয়ার আগ পর্যন্ত আগের ভাড়াতেই লঞ্চে যাত্রী পরিবহন করবে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল (যাত্রী পরিবহন) সংস্থার পক্ষ থেকে লঞ্চ ভাড়া ১০০ ভাগ বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রস্তাবনা নিয়ে মালিক সমিতির প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে।

প্রস্তাবে বলা হয়েছে, সরকার কর্তৃক জ্বালানি তেলের (ডিজেল) মূল্য লিটার প্রতি ৩৪ টাকা বৃদ্ধি করায় এবং বিশ্ববাজারে ডলারের মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় বাংলাদেশের খোলা বাজারে মবিলের মূল্য ৫০ শতাংশ, প্লেট, এঙ্গেল, ইঞ্জিনের খুচরা যন্ত্রাংশ, ওয়েল্ডিং রড ও গ্যাস সহ স্প্রে পার্সের মূল্য প্রায় ২০০ গুণ বৃদ্ধি পাওয়ায় লঞ্চের বর্তমান যাত্রীভাড়া ১০০ কিলোমিটার পর্যন্ত দূরত্বের জন্য প্রতি কিলোমিটার ২.৩০ টাকার স্থলে ২.৩০ টাকা বৃদ্ধি করে ৪.৬০ টাকা এবং ১০০ কিলোমিটারের ঊর্ধ্বে প্রতি কিলোমিটার দূরত্বের জন্য বর্তমান ২.০০ টাকার স্থলে ২.০০ টাকা বৃদ্ধি করে ৪.০০ টাকা নির্ধারণ করা।

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

;

অসুবিধা না হলে আইজিপি যুক্তরাষ্ট্রে যেতে পারবেন: পররাষ্ট্রসচিব



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন

পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিতব্য পুলিশ প্রধানদের সম্মেলনে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে জাতিসংঘ। মার্কিন নিষেধাজ্ঞা থাকার পরও বেনজীর আহমেদ নিউইয়র্কের এই সম্মেলনে যেতে পারবেন কি-না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, কোনো রকম অসুবিধা না হলে আইজিপি সম্মেলনে অংশ নিতে পারবেন।

সোমবার (৮ আগস্ট) রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে ঢাকা সফররত মার্কিন আন্তর্জাতিক সংস্থাবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী মিশেল জে সিসনের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন তিনি।

পররাষ্ট্রসচিব বলেন, এ রকম জাতিসংঘের মিটিংয়ে যেতে গেলে একটি কনভেশন আছে। তবে অতীতে আমরা এ নিয়মের ব্যতিক্রমও দেখেছি। আগে থেকে বলা মুশকিল।

আইজিপি যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে পারবেন কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, এ বিষয়ে আমরা এখনও যোগাযোগ করিনি। তবে সামনের দিনগুলোতে যোগাযোগ করব।

গত ৪ আগস্ট স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক আদেশে বলা হয়েছে, ওই সম্মেলনে অংশ নেবেন বেনজীর আহমেদসহ ৬ সদস্যের প্রতিনিধি দল। আগামী ৩১ আগস্ট থেকে ১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ সম্মেলন হবে। ৩০ আগস্ট তাদের ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের এই দলে আরও রয়েছেন- স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের যুগ্ম সচিব আবু হেনা মোস্তফা জামান, মন্ত্রীর একান্ত সচিব (উপসচিব) মু. আসাদুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক (অতিরিক্ত ডিআইজি) নাশিয়ান ওয়াজেদ ও সহকারী পুলিশ মহাপরিদর্শক (এআইজি) মোহাম্মদ মাসুদ আলম।

উল্লেখ্য, গত বছরের ডিসেম্বরে র‍্যাবের সাবেক মহাপরিচালক (ডিজি) ও বর্তমান আইজিপি বেনজীর আহমেদসহ ৭ কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয় মার্কিন পররাষ্ট্র ও রাজস্ব বিভাগ।

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

;

ঘাঘটে ভেসে যাচ্ছিল বৃদ্ধের মরদেহ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রংপুর
ঘাঘটে ভেসে যাচ্ছিল বৃদ্ধের মরদেহ

ঘাঘটে ভেসে যাচ্ছিল বৃদ্ধের মরদেহ

  • Font increase
  • Font Decrease

 

রংপুরের পীরগাছায় ঘাঘট নদী থেকে খবির উদ্দিন(৮০) নামে এক বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন ছিলেন বলে দাবি করেছে পরিবারের লোকজন।

সোমবার(৮ আগস্ট) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন পীরগাছা থানার ওসি মাসুমুর রহমান। এর আগে দুপুরে উপজেলার কৈকুড়ী ইউনিয়নের মকসুদ খাঁ গ্রামে ঘাঘট নদীর মান্নানের ঘাট এলাকা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়

নিহত খবির উদ্দিন পার্শ্ববর্তী মিঠাপুকুর উপজেলার জারুল্যাপুর সর্দারপাড়া গ্রামের মৃত বাসারত উল্ল্যার ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সকালে ঘাঘট নদীতে স্রোতে ভেসে যাচ্ছিল এক ব্যক্তির মরদেহ । এ সময় মরদেহটি মান্নানের ঘাট এলাকায় নদীর কিনারায় ভিড়িয়ে নেয় স্থানীয়রা। পরে তারা ৯৯৯ এ ফোন করে বিষয়টি জানালে দুপুরে অজ্ঞাত পরিচয়ের মরদেহটি উদ্ধার করে পীরগাছা থানা পুলিশ।  বিষয়টি জানাজানি হলে বিকেলে নিহতের ছেলে থানায় এসে পরিচয় সনাক্ত করেন।

নিহতের ছেলে রফিকুল ইসলাম বলেন, আমার বাবা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। সকালেও পাশের বাড়ির লোকজনের সঙ্গে গল্পে মেতেছিলেন। কখন ঘাঘট নদীতে গেছেন আমরা বুঝতে পারিনি।

পীরগাছা থানার ওসি মাসুমুর রহমান বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

;

সখীপুরে জমি নিয়ে সংঘর্ষে ছোট ভাই খুন, পাঁচজন আটক



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, টাঙ্গাইল
সখীপুরে জমি নিয়ে সংঘর্ষে ছোট ভাই খুন, পাঁচজন আটক

সখীপুরে জমি নিয়ে সংঘর্ষে ছোট ভাই খুন, পাঁচজন আটক

  • Font increase
  • Font Decrease

টাঙ্গাইলের সখীপুরে জমি নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে মারামারির ঘটনায় ছোট ভাই ফালু মিয়ার (৬০) খুন হয়েছে।

সোমবার(০৮ আগস্ট) সকালে উপজেলার কামালিয়াচালা মধ্যে পাড়ায় এ সংঘর্ষ ঘটেছে। এ সময় ফালু মিয়ার স্ত্রী আজিবন (৫০), ছেলে রিপন মিয়া (২৮), প্রতিবেশী মুঙ্গল আলী (৫২) ও তার স্ত্রী হালিমা আক্তার (৩৮) আহত হয়ে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বড় ভাই বাবর আলী (৬৫) ও ছেলে নাজিম (৩৮) সখীপুর থানায় উল্টো ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করতে আসলে রোকেয়া (২৭), রহিম (৪০) ও তাহেরা (৪০)সহ পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানিয়ে খুন হওয়ার বিষয়ে মামলা দেয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে জানায় পুলিশ।

এলাকাবাসী জানায়, ক্রয়কৃত জমিতে কাটা তারের বেড়া দিয়ে ফালু ও তার ছোট ভাই টিপু বাড়ি নির্মান করে। সেই জমির কাটা তার ভেঙ্গে বড় ভাই বাবর আলী ও তার ছেলে নাজিম ২০/২৫ জনের একটি সংঘবদ্ধ চক্র নিয়ে জমি দখলের চেষ্টা চালায়। এ সময় বাঁধা দিতে গেলে সংবদ্ধ চক্রের দা, শাবলের আঘাতে ছোট ভাই ফালু মিয়া গুরুতর আহত হয়। তাকে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার সময় মারা যায়। এ সংঘর্ষে ফালুর মিয়া স্ত্রীর আজিবন নেছার হাত ভেঙ্গে যায়, তার ছেলে রিপনের মাথা ফেটে যায়। এ সময় প্রতিবেশী মুঙ্গল আলী ও তার স্ত্রী হালিমা গুরুতর আহত হয়ে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সখীপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে।

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

;