সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণ: ১ মাস পর দেহাবশেষ উদ্ধার

  সীতাকুণ্ডে ডিপোতে আগুন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণ: ১ মাস পর ফায়ার কর্মীর দেহাবশেষ উদ্ধার

সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণ: ১ মাস পর ফায়ার কর্মীর দেহাবশেষ উদ্ধার

  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের বিএম কন্টেইনার ডিপুতে বিস্ফোরণের এক মাস পর দেহাবশেষ উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার (৪ জুলাই) বিকেলে ডিপুর ভেতর টিনশেড পরিষ্কারের সময় এই দেহাবশেষ পাওয়া যায়।

এসব তথ্য বার্তা২৪.কমকে নিশ্চিত করেছেন সীতাকুণ্ড থানার উপপরিদর্শক এইচ. এম দেলোয়ার হোসেন।

তবে ডিএনএ পরীক্ষা ছাড়া ওই দেহাবশেষ ঠিক কত জানের তা নিশ্চিত করা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম আহসান।

তিনি বলেন, হাসপাতালে শুধু দেহের কিছু অংশ বিশেষ আসছে। এগুলো কয়েকটা টুকরো। ডিএনএ পরীক্ষা ছাড়া এখানে ঠিক কতজনের দেহাবশেষ তা বলা যাচ্ছে না। দেহাবশেষগুলো আগের মরদেহগুলোর সাথে ফ্রিজারে সংরক্ষণ করে রাখা হয়েছে।

গত ৪ জুন রাতে বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ডের পর বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ৪৯ জনের লাশ উদ্ধার করে উদ্ধারকারী সংস্থাগুলো। এর মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের ১০ জন সদস্য ছিলেন। দুর্ঘটনায় আহত হয়েছিলেন দুই শতাধিকের বেশি মানুষ।

  সীতাকুণ্ডে ডিপোতে আগুন

কুষ্টিয়ায় টোল প্লাজায় ছাত্রলীগ কর্মীদের তুলকালাম



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়ায় টোল প্লাজায় ছাত্রলীগ কর্মীদের তুলকালাম

কুষ্টিয়ায় টোল প্লাজায় ছাত্রলীগ কর্মীদের তুলকালাম

  • Font increase
  • Font Decrease

কুষ্টিয়া মাস-উদ রুমী সেতু টোল প্লাজায় ছাত্রলীগ কর্মীরা তুলকালাম কাণ্ড ঘটিয়েছেন। টোল চাওয়ায় ওই টোল প্লাজায় কর্তব্যরত ছয়জন কর্মীকে বেধড়ক পিটিয়েছে তারা। শুক্রবার (১৯ আগস্ট) সকাল ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ছাত্রলীগেরও কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি করা হয়। আহতদের কয়েকজনকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালসহ স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, সকাল ১১টার দিকে কুষ্টিয়া শহরে জেলা ছাত্রলীগের একটি আলোচনা সভায় অংশ নিতে কুমারখালী থেকে ছাত্রলীগের একদল নেতাকর্মী মোটরসাইকেল যোগে কুষ্টিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। মাস-উদ রুমী টোল প্লাজায় পৌঁছলে সেখানে দায়িত্বরত একজন কর্মী একটি মোটরসাইকেল থামানোর চেষ্টা করে। এসময় পেছন থেকে আরও ৩০ থেকে ৪০টি মোটরসাইকেল এসে পৌঁছে ঘটনাস্থলে। তারা মোটরসাইকেল থেকে নেমেই টোল প্লাজায় দায়িত্বরত কর্মীদের ওপর চড়াও হয় এবং কিলঘুষিসহ বেধড়ক পেটানো শুরু করেন।

এ বিষয়ে টোলপ্লাজায় দায়িত্বরত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স মাইক্রো ডাইনামিকের ম্যানেজার শামীম আহমেদ জানান, সকাল ১১টার দিকে একটি মোটরসাইকেলে আসা যুবকের কাছ থেকে টোল চাইলে ওই মোটরসাইকেলে থাকা যুবক টোল আদায়কারীর ওপর চড়াও হয় এবং পেছন থেকে ৩০-৪০টি মোটরসাইকেল যোগে আসা যুবক এসে অতর্কিত হামলা চালায় টোল আদায়কারীদের ওপর। এ ঘটনায় অন্ততপক্ষে ৬ টোল আদায়কারী আহত হন। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, কিছু টাকাও ছিনিয়ে নেয় ওই যুবকরা। হামলাকারীরা ছাত্রলীগের নেতাকর্মী।

কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ হাফিজ জানান, বিষয়টি শুনেছি। তবে আমার কর্মীদের ওপর টোল প্লাজায় দায়িত্বরত কর্মীরা হামলা চালিয়েছে। এতে বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী আহত হয়েছেন।

কুমারখালী থানার অফিসার ইনচার্জ কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, বিষয়টি শুনেছি। এটি ঠুনকো একটি ঘটনা। এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি।

  সীতাকুণ্ডে ডিপোতে আগুন

;

বঙ্গোপসাগরে ৫ ট্রলারডুবি, নিখোঁজ ১৬ জেলে



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে ঝড়ের কবলে পড়ে পাঁচটি মাছধরা ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরের বিভিন্ন পয়েন্টে এ ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনায় ৫৪ জেলে উদ্ধার হলেও এখনও নিখোঁজ আছেন অন্তত ১৬ জেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মহিপুর মৎস্য আড়ত মালিক সমিতির সভাপতি ও মহিপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ফজলু গাজী বলেন, আজ সকালে ঝড়ের কবলে পড়ে দু’টি ও বিকেলে ঝড়ের কবলে পড়ে আরও তিনটি মাছধরা ট্রলার পায়রা বন্দরের শেষ বয়া থেকে বেশ কয়েক কিলোমিটার দূরে ডুবে গেছে। ডুবে যাওয়া ট্রলারে ১৬ জন জেলে ছিলেন বলে জানান তিনি। তারা সবাই নিখোঁজ রয়েছেন।

নিজামপুর কোস্টগার্ডের কন্টিনজেন্ট কমান্ডার সেলিম মণ্ডল বলেন, সাগরে ট্রলারডুবির খবর পেয়েছি। আমাদের টহল টিম সাগরে আছে এবং উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

 

  সীতাকুণ্ডে ডিপোতে আগুন

;

‘গণজাগরণের ক্ষেত্রে সম্প্রীতি বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে’



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
আলোচনা সভা

আলোচনা সভা

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি সামাজিক, সাংস্কৃতিক, গণজাগরণ সমানভাবে ঘটাতে না পারলে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছানো বাধাগ্রস্ত হবে। গণজাগরণ সৃষ্টির ক্ষেত্রে সম্প্রীতি বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। সম্প্রীতি বাংলার দৃষ্টান্ত বিশ্বমাঝে তুলে ধরতে পারলে বিশ্ববাসীর যথাযথ উপকার হবে বলে মত প্রকাশ করেছেন বক্তরা।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) বিকাল ৪টায় সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সম্প্রীতি বাংলাদেশ আয়োজিত ‘আগস্ট: শোকের মাস, ষড়যন্ত্রের মাস’ শীর্ষক আলোচনায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

সম্প্রীতি বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় আহবায়ক পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভাপতিত্বে প্রধান বক্তা ছিলেন শহীদ জায়া শিক্ষাবিদ শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী।

শিক্ষাবিদ শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বঙ্গবন্ধুর নীতি ও আদর্শ সর্বোচ্চ পর্যায়ে অনুসরণ না করতে পারলে, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হবে না। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে বাহাত্তরের সংবিধানে বর্ণিত ধর্ম নিরপেক্ষতাকে বিনষ্ট করার ক্ষেত্রে যে অপশক্তি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অবিরত ষড়যন্ত্র করে চলেছ, তাদের বিরুদ্ধে দল মত ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে বাঙালি জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। তিনি আরও বলেন, সম্প্রীতি বাংলাদেশের মত সংগঠনের পাশে সকল অসাম্প্রদায়িক সংগঠন এবং মানুষের শক্তভাবে দাঁড়াতে হবে।

পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শনে অন্যতম উপাদান ছিল মানবকল্যাণ, সামাজ কল্যাণ, বাঙালির জয়যাত্রা এবং সমৃদ্ধ সোনার বাংলার স্বপ্ন। একই সঙ্গে বাঙালির হাজার বছরের সংস্কৃতি তিনি লালন করতেন তার জীবনাচারে। সম্প্রীতি বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর জীবন দর্শনের এই বৈশিষ্ট্যগুলোকে ধারণ করে পথ চলা শুরু করেছে এবং সম্প্রীতি বাংলাদেশের এই পথ চলা ততদিন পর্যন্ত চলবে, যতদিন পর্যন্ত বাংলাদেশকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বঙ্গবন্ধুর আদর্শে শতভাগ অসাম্প্রদায়িক না করা যাবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের সমাজে সাম্প্রদায়িকতার, ভাতৃত্বের, সকল প্রকার বৈষম্যের শত্রুকে উপরে ফেলে বাংলাদেশকে একটি সুখী, সমৃদ্ধ, অসাম্প্রদায়িক এবং সম্প্রীতির বাংলাদেশ গড়ে তোলার কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত সম্প্রীতি বাংলাদেশ নিরলসভাবে কাজ করে যাবে। অসাম্প্রদায়িক ও সম্প্রীতির সমাজ গঠনের মাধ্যমেই শোধ হবে পিতৃঋণ।

তিনি আরও বলেন, জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই প্রতিষ্ঠিত হবে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ এবং দর্শন।

সম্প্রীতি বাংলাদেশের সদস্য সচিব অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল বলেন, সিলেট অঞ্চল সম্প্রীতির পিঠস্থান। শত শত বছর ধরে এই অঞ্চলের মানুষ সম্প্রীতির বন্ধনে শ্রদ্ধাশীল। সিলেটের সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত দেশে বিদেশে সবখানেই সুপরিচিত এবং প্রতিষ্ঠিত। সম্প্রীতি বাংলাদেশের কার্যপরিধি সিলেটের মানুষের মাঝে পৌঁছে দিতে পারাটা সংগঠনের জন্যে একটি বিশাল প্রাপ্তি হবে। এ ব্যাপারে স্থানীয় পর্যায়ের রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, শিক্ষা এবং তরুণ প্রজন্মকে সম্প্রীতি বাংলাদেশের ছায়াতলে এসে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এবং হাজার বছরের বাঙালির ঐতিহ্যকে প্রতিষ্ঠা করবার জন্য আহবান জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- সিলেট মহানগর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দীন খান সহ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে ছাত্র, যুব, মহিলা নেতৃবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধা, স্থানীয় বুদ্ধিজীবী, ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ এবং তরুণ প্রজন্মের দর্শক উপস্থিত ছিলেন।

  সীতাকুণ্ডে ডিপোতে আগুন

;

জ্বালানি তেল ও দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে অনশন কর্মসূচি পালন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
জ্বালানি তেল ও দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে অনশন কর্মসূচি পালন

জ্বালানি তেল ও দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে অনশন কর্মসূচি পালন

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর গুলশানের নিকেতনে বসবাসকারী রাষ্ট্রের একজন সাধারণ নাগরিক ডা. দলিলুর রহমান নিজ বাসার ছাদে জ্বালানি তেল ও দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে অনশন কর্মসূচি পালন করেছেন।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত অনশন কর্মসূচি পালন করেন তিনি।

অনশনকালে ডা. দলিলুর জানান, হঠাৎ করে  জ্বালানি তেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতির কারণে মানুষের জীবনযাত্রা ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। বিশেষ করে ন্যূনতম খাবার কিনতে নিম্ন আয়ের মানুষের জীবনে নাভিশ্বাস বিরাজ করছে।

তিনি বলেন, দেশের মানুষকে বাঁচাতে, জীবনমানের অবনমন ঠেকাতে জ্বালানি তেলের দাম কমাতে হবে। দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে আনতে হবে। পাশাপাশি পাচার করা সাড়ে ছয় লাখ কোটি টাকা দেশে ফেরত আনতে হবে।

সন্ধ্যায় অনশন শেষ করে তিনি জানান, দাম না কমালে প্রেসক্লাব, ঢাবি, শহীদ মিনার, শাহবাগসহ বিভিন্ন স্থানে প্রতীক অনশন শুরু করবেন তিনি।

  সীতাকুণ্ডে ডিপোতে আগুন

;