ইউক্রেনের প্লেন বিধ্বস্ত হওয়ার জন্য ইরানকে দুষছে পশ্চিমারা

  ইরান-আমেরিকা দ্বন্দ্ব

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ইউক্রেনের বিধ্বস্ত হওয়া প্লেনটি, ছবি: সংগৃহীত

ইউক্রেনের বিধ্বস্ত হওয়া প্লেনটি, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউক্রেনের বোয়িং ৭৩৭ যাত্রীবাহী প্লেন বিধ্বস্ত হওয়ার জন্য ইরানকে দায়ী করছে পশ্চিমারা। পশ্চিমা নেতারা বলছেন, তাদের কাছে যেসব প্রমাণ ও তথ্যাদি রয়েছে সেগুলো পর্যবেক্ষণ করলে দেখা যায় ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ইউক্রেনের যাত্রীবাহী প্লেনটি বিধ্বস্ত হয়েছে।

কানাডা এবং যুক্তরাজ্যের নেতারা এই ঘটনার তদন্তের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেছেন, তিনি বেশ কিছু গোয়েন্দা সংস্থার তথ্য হাতে পেয়েছেন। এসব তথ্য অনুযায়ী, ইরানি ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতেই প্লেনটি বিধ্বস্ত হয়েছে। তবে ঘটনাটি অনিচ্ছাকৃতভাবে ঘটেছে বলে জানান ট্রুডো।

আরও পড়ুন: তেহরানে ১৮০ জন যাত্রী নিয়ে প্লেন বিধ্বস্ত

ট্রুডো আরও বলেন, বর্তমানে কানাডীয়দের অনেক প্রশ্ন রয়েছে এবং তারা এর উত্তর চায়। তবে এখনই তিনি কাউকে দোষারোপ করতে চান না।

আর যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেন, প্লেন দুর্ঘটনার বিষয়ে ব্রিটেন কানাডা এবং দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত অন্যান্য আন্তর্জাতিক অংশীদারদের সঙ্গে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদ মাধ্যমগুলো অনুমান করছে, মার্কিন ঘাঁটিতে হামলার পর পাল্টা হামলা প্রতিরোধ করতে প্রস্তুত ছিলো ইরান। তারা (ইরান) যাত্রীবাহী প্লেনটিকে যুদ্ধ বিমান ভেবে আক্রমণ করে।

সিবিএস নিউজ মার্কিন গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, একটি স্যাটেলাইট দুটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার বিষয়টি শনাক্ত করেছে। আর তার পরেই বিস্ফোরণের আরেকটি বিষয় শনাক্ত করে স্যাটেলাইট।

আরও পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রকে বিধ্বস্ত প্লেনের ব্ল্যাকবক্স দিবে না ইরান

এদিকে দুর্ঘটনা কবলিত প্লেনটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্রকে ব্ল্যাকবক্স দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে ইরান। তবে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় পরিবহন নিরাপত্তা বোর্ড (এনটিএসবি) কী জন্য বিধ্বস্ত হয়েছে তা তদন্ত করতে একটি প্রতিনিধি দলকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

তবে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় প্লেনটির বিধ্বস্ত হওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছে ইরান। তাদের দাবি, অভ্যন্তরীণ টেকনিক্যাল সমস্যার কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

ইরাকে অবস্থিত মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার কিছু সময় বাদেই প্লেনটি বিধ্বস্ত হয়। আর এতে মারা যায় ১৭৬ জন। নিহতদের মধ্যে ৮২ জন ইরানি, ৬৩ জন কানাডিয়ান, ১১ জন ইউক্রেনের, ১০ সুইডিশ, চার আফগান ও তিনজন জার্মানির নাগরিক ছিলেন বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন: ইরানই ভুলবশত ইউক্রেনের প্লেন ভূপাতিত করেছে, দাবি যুক্তরাষ্ট্রের

  ইরান-আমেরিকা দ্বন্দ্ব