নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন নিয়ে কোনও শঙ্কা নেই: ডিসি

  নাসিক নির্বাচন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নারায়ণগঞ্জ
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে কোন প্রকার শঙ্কা নেই বলে মন্তব্য করেছেন জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ। আমরা সবাইকে আশ্বস্ত করতে চাই নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে হবে।

শনিবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুর ১টায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা ১৯২টি ভোট কেন্দ্রকেই গুরুত্বসহকারে দেখছি। আমরা যেহেতু চারটি বাহিনী নিয়ে নিরাপত্তা বলয়ের সৃষ্টি করেছি। প্রত্যেক মানুষই নির্বিঘ্নে ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট দিতে পারবে।

ডিসি বলেন, পুলিশের প্রায় ৭৬টি টিম রয়েছে, র‌্যাবের ৬৫টি, ১৪ প্লাটুন বিজিবি কাজ করছে সবসময়। ম্যাজিস্ট্রেটরাও কাজ করছে। আগামীকাল আরও কিছু যুক্ত হবে। আমরা নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পেরেছি। যাতে সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নির্বাচন হয়।

করোনার বিধিনিষেধ নিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনার ও সরকারি পক্ষ থেকে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে যে করোনার বিধিনিষেধ মেনেই ভোট দিতে হবে। মাস্ক বাধ্যতামূলক, হ্যান্ডস্যানিটাইজার এবং অন্যান্য যে সুরক্ষা সামগ্রী আছে তা প্রত্যেকটি কেন্দ্রে থাকবে। প্রার্থীদের উদ্দেশ্য বলেন তারাও যেন ভোটারদের সচেতন করেন।

তিনি আরও বলেন, ১৯২টি কেন্দ্রে কিন্তু সিসি ক্যামেরা নাই। কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আছে কিন্তু অধিকাংশ জায়গাতেই নাই। সরকারের পক্ষ থেকে বা নির্বাচন কমিশনারের পক্ষ থেকে সিসি ক্যামেরা খুলে ফেলার কোনও নির্দেশনা নাই। আমরা খুলিও নাই। যে সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সিসি ক্যামেরা আছে সেগুলো অব্যাহত আছে।

স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকারের অভিযোগ প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, আমরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর কাছ থেকে লিখিত, ফোনে বা অন্য কোনো মাধ্যমে অভিযোগ পাইনি। আমরা নির্বাচনের রুটিন ওয়ার্ক করছি। দাগি আসামিদের বিরুদ্ধেই অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

এসময় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম বলেন, ইতিমধ্যে প্রত্যেকটি ভোট কেন্দ্রে পুলিশ, আনসার চলে গেছে। একেকটি কেন্দ্রে ৫-৬ জন পুলিশের নেতৃত্বে ১৫-২০ জন আনসার কাজ করবেন। এছাড়া আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটিলিয়ন (র‌্যাব) ও বিজিবি কাজ করবে।

তিনি বলেন, প্রতিটি ওয়ার্ডে তিনটি আর্মড পুলিশের মোবাইল কোট, র‌্যাবের মোবাইল কোট, স্ট্রাইকিং ফোর্স ও এক প্লাটুন করে বিজিবি মোতায়েন করা হবে। নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে চলবে এই নির্বাচন। প্রতিটি মহল্লায় নিরাপত্তার বলয়ে আনব। কোথাও যেন কোন সমস্যা না হয় সেদিকে সজাগ থাকবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, র‌্যাব-১১ সিইও তানভীর পাশা, বিজিবি’ সিইও আল-আমিন প্রমুখ।

  নাসিক নির্বাচন

‘প্রধানমন্ত্রীর পদক্ষেপের ফলে দেশে আজ ব্যাপক উন্নতি হচ্ছে’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ

পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রধানমন্ত্রীর রাষ্ট্রনায়কোচিত পদক্ষেপের ফলে আজ বাংলাদেশের ব্যাপক উন্নতি হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) রাজারবাগ পুলিশ অডিটোরিয়ামে আয়োজিত পুলিশ সপ্তাহ-২০২২ এর ৫ম ও শেষ দিনের প্রথম অধিবেশনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

পুলিশের মহাপরিদর্শক বলেন, এই উন্নয়নের মূলে রয়েছে পুলিশ। কারণ পুলিশ সামাজিক শৃঙ্খলা, সামাজিক স্থিতিশীলতা, সামাজিক নিরাপত্তা বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছে। ফলে দেশের অভ্যন্তরীণ বিনিয়োগ বাড়ছে, পাশাপাশি বিদেশিরাও আমাদের দেশে বিনিয়োগ করছে। ফলে দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি সাধিত হচ্ছে।

নিরাপত্তাকে উন্নয়নের অক্সিজেন হিসেবে আখ্যায়িত করে আইজিপি বলেন, দেশ যে গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে সে একই গতিতে পুলিশের অগ্রগতিও প্রয়োজন। সে লক্ষ্যে পুলিশের ন্যায্য বিষয়গুলো বিবেচনার অনুরোধ জানান তিনি।

সভায় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লাহ খন্দকার, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা (ওঅ্যান্ডএম) অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব খোরশেদা ইয়াসমীন, বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত আইজিগণ, সকল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি ও জেলার পুলিশ সুপারগণ উপস্থিত ছিলেন।

  নাসিক নির্বাচন

;

‘পুলিশ জনগণের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, বাংলাদেশ পুলিশ প্রতিনিয়ত বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় যেভাবে সাফল্য দেখিয়েছে তা প্রশংসাযোগ্য। দেশের জনগণের কল্যাণে পুলিশ দক্ষতার সঙ্গে আন্তরিকভাবে দায়িত্ব পালন করছে। পুলিশ জনগণের আস্থা অর্জন করতে পেরেছে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) পুলিশ সপ্তাহ-২০২২ এর শেষ দিনের প্রথম অধিবেশনে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। রাজারবাগ পুলিশ অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এই অধিবেশনে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদের সঙ্গে ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের মতবিনিময় হয়।

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ সভায় সভাপতিত্ব করেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেলওয়ে রেঞ্জের অতিরিক্ত আইজি মো. দিদার আহম্মদ।

ফরহাদ হোসেন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বর্তমান সরকারের উদ্যোগে দেশের ঈর্ষণীয় উন্নতি হচ্ছে। দেশের আইন-শৃঙ্খলা উন্নত হওয়ায়, শান্তি বজায় থাকায় বিভিন্ন মেগা প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে, দেশের অগ্রগতি হচ্ছে। আর এর পেছনে আছে পুলিশ।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, পুলিশের আধুনিকায়ন ও অগ্রগতিতে সরকার খুবই আন্তরিক। পুলিশের জনবল কাঠামোতে বিভিন্ন পদ সৃজন সরকারের সুবিবেচনায় রয়েছে। তিনি প্রস্তাবিত নতুন থানার জনবল বাড়ানো, বরিশাল ও মৌলভীবাজার জেলায় দুটি পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের (পিটিসি) জনবল অনুমোদনের প্রস্তাব সুবিবেচনার আশ্বাস প্রদান করেন।

তিনি সরকারি দায়িত্ব ও কর্তব্য যথাযথভাবে পালন করে দেশকে বঙ্গবন্ধুর 'সোনার বাংলা' হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

সভায় এপিবিএন এর তিনটি নতুন ব্যাটালিয়নের জনবল অনুমোদন, প্রস্তাবিত নতুন থানার জনবল বাড়ানো, বরিশাল ও মৌলভীবাজারে দুটি পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের জনবল অনুমোদনের প্রস্তাব করা হয়।

গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ বলেন, তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে পুলিশ জনগণকে সেবা দিয়ে যাচ্ছে। আগামীতেও তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার অব্যাহত রাখতে হবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশের অভূতপূর্ব উন্নতি হয়েছে। বিভিন্ন সামাজিক সূচকেও দেশ এগিয়ে রয়েছে। উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে পুলিশের কার্যকর ভূমিকা অনস্বীকার্য।

সভায় উপস্থিত কর্মকর্তারা পুলিশের সিনিয়র লিডারদের জন্য নির্ধারিত বাসভবন বরাদ্দ দিতে প্রতিমন্ত্রীর নিকট প্রস্তাব করেন। গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী প্রস্তাবিত বাসভবন বরাদ্দের উদ্যোগ গ্রহণের আশ্বাস প্রদান করেন।

সভায় গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লাহ খন্দকার, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা (ওঅ্যান্ডএম) অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব খোরশেদা ইয়াসমীন, বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত আইজিগণ, সকল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি ও জেলার পুলিশ সুপারগণ উপস্থিত ছিলেন।

  নাসিক নির্বাচন

;

ধামরাইয়ে ৯ ইটভাটাকে ৫৮ লক্ষ টাকা জরিমানা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সাভার (ঢাকা)
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

পরিবেশ অধিদফতরের ছাড়পত্র না থাকায় অবৈধভাবে ব্যবসা পরিচালনার দায়ে ঢাকার ধামরাইয়ে অভিযান চালিয়ে ৯টি ইটভাটাকে ৫৮ লক্ষ টাকা আর্থিক জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদফতরের ভ্রাম্যমান আদালত।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত উপজেলার জলসিন, কান্দাপাড়া, কালামপুর, ধাইরা ও ডাউটিয়া এলাকায় এই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন পরিবেশ অধিদফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তামজীদ আহমেদ।

এ সময় আর্থিক জরিমানাসহ ইটভাটা ভেঙ্গে ও পানি দিয়ে ভাটার চুলা নিভিয়ে দেয়া হয়। মোট ৮টি ইটভাটাকে ৫৮ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। হালিমা ব্রিকস এর মালিক পলাতক থাকায় ইট ভাটাটি সম্পূর্ণ ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেওয়া হয়।

অভিযানে মা ব্রিকসকে ছয় লক্ষ টাকা, পিওর ব্রিকসকে বিশ লক্ষ টাকা, মা স্টার ব্রিকস ছয় লক্ষ টাকা, জয় বাংলা ব্রিকস ছয় লক্ষ টাকা, এসবিএন ব্রিকস-১ দুই লক্ষ টাকা, এসবিএন ব্রিকস-২ ছয় লক্ষ টাকা, বিবিসি ব্রিকস ছয় লক্ষ টাকা, সান ব্রিকস ছয় লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তামজীদ আহমেদ জানান, পরিবেশ দূষণকারী ও অবৈধ ইটভাটা বন্ধে ধারাবাহিক অভিযানের অংশ হিসেবে ধামরাইয়ে ইটভাটায় অভিযান চালানো হয়। ৮টি ভাটা কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র দেখাতে ব্যর্থ হলে তাদের আর্থিক জরিমানা করা হয়। একটি ইট ভাটার মালিক পলাতক থাকায় ভাটাটি সম্পূর্ণ ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেওয়া হয়। অনুমতি বিহীন ইট ভাটার বিরুদ্ধে তাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

অভিযানকালে এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা জেলা পরিবেশ অধিদফতরের উপ-পরিচালক জহিরুল ইসলাম তালুকদার, সহকারী পরিচালক মোসাব্বের হোসেন রাজীব, অনিতা ঘোষ, পরিদর্শক ফাতেমাতুজ জহুরা, ক্যাশিয়ার উজ্জল বরুয়াসহ বিপুল সংখ্যক পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা।

  নাসিক নির্বাচন

;

সিরাজগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সিরাজগঞ্জ
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার মিরপুর মহল্লায় দুই গ্রুপের সংঘর্ষে মুলকাত আলী (৬০) নামের একজন নিহত হয়েছেন। এঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টার দিকে মিরপুর মহল্লার ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের পাশে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

নিহত মুলকাত আলী মিরপুর মহল্লার মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, মুলকাত আলী গংদের সাথে কাদের চেয়ারম্যানের (সাবেক) গংদের দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে জমি নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মুলকাত মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। তাকে উদ্ধার করে শহরের আভিসিনা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। এঘটনায় উভয় পক্ষে মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন যাবত তাদের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে দু’পক্ষের সংঘর্ষ বাধে। এঘটনায় মুলকাত আলী নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। লাশ উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যু সঠিক কারণ জানা যাবে। এঘটনায় এখনো লিখিত অভিযোগ পায়নি।

  নাসিক নির্বাচন

;