উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট, তবে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি

  নাসিক নির্বাচন



সুলতান মাহমুদ আরিফ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট, তবে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি

উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট, তবে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি

  • Font increase
  • Font Decrease

নারায়ণগঞ্জ থেকে: উৎসবমুখর পরিবেশে চলছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। সকাল থেকে ভোট প্রদানের ব্যাপক ভোটারের উপস্থিতি দেখা গেছে। সেইসঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) সকাল আটটায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়, চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ভোট হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে।


ভোটকেন্দ্রগুলো সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের প্রচণ্ড ভিড়। দীর্ঘ লাইনে গায়ের সঙ্গে গা লাগিয়ে ভোটাররা দাঁড়িয়েছেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোন প্রবণতা দেখা যায়নি। এমনকি স্বাস্থ্যবিধি মানাতে ছিল না কোন নির্দেশনাও।

ভোটারদের মাস্ক পরে থাকতে দেখা গেলেও সামাজিক দূরত্ব ছিল না। অনেকের আবার থুতনিতে ঝোলানো অবস্থায় ছিল। এতে  করোনা সংক্রমণ ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।


আকলিমা নামে এক ভোটার জানান, এত মানুষের ভিড় কিভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানব। মাস্ক পরে আছি। হাঁসফাঁস লাগছে।

ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বরত এক কর্মকর্তা বলেন, সকাল থেকে ভোটারদের চাপ অনেক। তার উপর ইভিএমের কারণে লাইন বড় হচ্ছে। ভোটারদের সামলানো যাচ্ছে না এ অবস্থায় নির্বাচনে স্বাস্থ্য মানানো মুশকিল। তবে ভোটার নিজেদের সচেতন হতে হবে।

গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত স্বাস্থ্য অধিদফতরের ২৪ ঘণ্টার আপডেটে দেখা যায়,  সারাদেশে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৪৪৭ জনের। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৩৫ শতাংশ। এ ছাড়া, একই সময়ে করোনায় মৃত্যু হয়েছে আরও ৭ জনের। নারায়ণগঞ্জে ২৩৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

  নাসিক নির্বাচন

‘ভারত থেকে গরু আসা বন্ধ হলেই আমরা পুরোপুরি স্বনির্ভর হব’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল

  • Font increase
  • Font Decrease

আমাদের প্রায় ১৭ কোটি মানুষের প্রচুর মাংস ও ডিমের চাহিদা রয়েছে। এই চাহিদার সঙ্গে তাল মিলিয়ে পোল্ট্রি শিল্প বেড়ে উঠেছে। শুধু পোল্ট্রি নয়, আমরা গবাদিপশুতেও এগিয়ে আছি। আমরা গবাদিপশু উৎপাদনে প্রায় স্বনির্ভর। ভারত থেকে গরু আসা বন্ধ হলেই আমরা পুরোপুরি স্বনির্ভর হয়ে যাবো বলে মন্তব্য করেছেন,স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

শনিবার (২৮ জানুয়ারি) রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত দুই দিনব্যাপী বাংলাদেশ পোল্ট্রি কনভেনশন-২০২৩ এর প্রথম দিনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমি যতবার ভারত সফর করি, সেখানকার সরকার বলে তোমাদের গরু দেব না। আমিও বলি, আপনারা গরু দেওয়া বন্ধ করলেই বরং আমরা কৃতজ্ঞ থাকব।

তিনি বলেন, পোল্ট্রি শিল্পের আমাদের প্রধান সমস্যা বাজারে দাম ধরে রাখতে না পারা। পোল্ট্রি শিল্প অনেক সংগ্রাম করে এখনও টিকে আছে। আপনাদের সঙ্গে সঙ্গে আমি নিজেও একজন খামারি হয়ে উঠেছি। আমি গরু, ছাগল, ভেড়া ও মুরগি পালন করি। ১৫ দিন পরপর সেগুলো কৃষিবিদরা পরিদর্শন করেন।

  নাসিক নির্বাচন

;

মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনায় শেষ হলো ৩ দিনব্যাপী সুন্নি ইজতেমা



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনায় শেষ হলো ৩ দিনব্যাপী সুন্নি ইজতেমা

মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনায় শেষ হলো ৩ দিনব্যাপী সুন্নি ইজতেমা

  • Font increase
  • Font Decrease

লক্ষীপুরে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ঐতিহ্যবাহী সাইফিয়া দরবার শরীফে অনুষ্ঠিত হয়েছে ৩ দিনব্যাপী সুন্নি ইজতেমা।

শনিবার (২৮ জানুয়ারী) বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয় আশেকে তরিকতের এই মিলনমেলা।

মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনাসহ দুর্ভিক্ষ, মহামারি, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থেকে হেফাজতের জন্য দোয়া ও দেশের সকল বীর শহীদের আত্মার মাগফেরাতের জন্য মহান আল্লাহর নিকট দোয়া চাওয়ার মধ্য দিয়ে শেষ হয় "পবিত্র সুন্নি ইজতেমা ২০২৩"।

ইজতেমায় মূল বয়ান পেশ করেন এবং আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন সাইফিয়া দরবার শরীফ লক্ষীপুর পীর সাহেব, রাহনুমায়ে আশেকানে সাইফি আলহাজ হযরত মাওলানা শাহ মুহাম্মদ আতায়ে রাব্বী সিদ্দীকি আস-সাইফি।

গত ২৬ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বাদ ফজর জিকির আসকার আর এবাদত বন্দেগীর মধ্য দিয়ে শুরু হয় ৩ দিনের সুন্নি ইজতেমা। ঐদিন বাদ জোহর দুপুর ২ টায় ইজতেমা উদ্বোধন করেন সাইফিয়া দরবার শরীফ লক্ষীপুর এর বর্তমান পীর সাহেব আলহাজ হযরত মাওলানা শাহ মুহাম্মদ আতায়ে রাব্বী সিদ্দীকী।

কাদেরিয়া সাইফিয়া দারুসুন্নাহ মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আবুল কালাম আজাদের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, পীরজাদা শাহ রেজায়ে রাব্বী সিদ্দিকী ও পীরজাদা হামদে রাব্বী সিদ্দিকী।

উপমহাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ অলিয়ে কামেল শাহসূফী মুর্শিদে হক লক্ষীপুরী আলহাজ মাওলানা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম সিদ্দিকী (রহ.) প্রবর্তিত রাসূল মপ্রেমের মহাসমাবেশ খ্যাত পবিত্র সুন্নি ইজতেমায় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে যোগ দেন হাজার হাজার ধর্মপ্রাণ মুসল্লীগণ।

লক্ষীপুর জেলার চর রমনীমোহন ইউনিয়নের অন্তর্গত মজু চৌধুরী ঘাট সংলগ্ন প্রধান সড়কের পাশে অবস্থিত সাইফিয়া দরবার প্রাঙ্গণে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও সুন্নি ইজতেমার আয়োজন করে আঞ্জুমানে জাকেরিন মোজাহিদ কেন্দ্রীয় পরিষদ, লক্ষীপুর।

মাওলানা মোহাম্মদ জাবের হোসাইন আস সাইফি'র সঞ্চালনায় ইজতেমায় দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠান সূচিতে আত্ম শুদ্ধিতা অর্জনের লক্ষ্যে ঈমান আমল ও আকিদা বিষয়ে মূল্যবান বয়ান পেশ করেন হযরত মাওলানা মুফতি মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন আল ক্বাদেরী, হযরত মাওলানা বোরহান উদ্দিন, হযরত মাওলানা ইদরীছ আনসারী, মুফতি নাজমুস শাহেদাত ফয়েজীসহ দেশ বরেণ্য ওলামায়ে কেরামগন।

বক্তারা বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম, সকল ধর্মের মানুষ সত্যিকারের মুমিনের কাছে নিরাপদ। ধর্মীয় উস্কানি বা হানাহানির নাম ইসলাম নয় নম্রতা এবং বিনয় হলো ইসলামের শিক্ষা। জঙ্গিবাদের সাথে ইসলামের কোন সম্পর্ক নেই। সমসাময়িক বিষয় বর্ণনায় বক্তারা মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হবার আহবান জানান।

ইজতেমায় আগতদের সুবিধার্থে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ভ্রাম্যমাণ স্বাস্থ্য সেবা ও বিনামূল্য ওষুধ বিতরণ, মাস্ক বিতরণ সহ সকল কার্যক্রমে সন্তুষ্টির কথা জানান ইজতেমায় আগত মুসল্লীগণ।

প্রায়ই লক্ষাধিক লোকের সমাগম ঘটেছে এবারের সুন্নি ইজতেমায়। উল্লেখ্য প্রতি বছর জানুয়ারি মাসে অনুষ্ঠিত হয় রাসুল প্রেমের মহাসমাবেশ খ্যাত ঐতিহ্যবাহী সুন্নি ইজতেমা।

  নাসিক নির্বাচন

;

আ. লীগের জনসভা ঘিরে রাজশাহী রুটে চলবে ৭ বিশেষ ট্রেন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজশাহী
আ. লীগের জনসভা ঘিরে রাজশাহী রুটে চলবে ৭ বিশেষ ট্রেন

আ. লীগের জনসভা ঘিরে রাজশাহী রুটে চলবে ৭ বিশেষ ট্রেন

  • Font increase
  • Font Decrease

দীর্ঘ প্রায় পাঁচ বছর পর রাজশাহীতে আসছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আগামীকাল রোববার (২৯ জানুয়ারি) দুপুরে রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদরাসা মাঠে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় যোগ দেবেন তিনি। ইতোমধ্যেই জনসভাকে ঘিরে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা তৈরি হয়েছে দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে। রাজশাহী তো বটেই পুরো বিভাগে ছড়িয়ে পড়েছে প্রধানমন্ত্রীকে নিজ চোখে দেখার উন্মাদনা। আর এই সমাবেশকে ঘিরে রাজশাহী রুটে বিশেষ ট্রেন চালু করেছে রেলপথ মন্ত্রণালয়।

আওয়ামী লীগের দাবির প্রেক্ষিতে সাতটি পৃথক রুটে সাতটি বিশেষ ট্রেন চলাচলের অনুমতি দেয় মন্ত্রণালয়টি।

শনিবার (২৮ জানুয়ারি) দুপুরে বাংলাদেশ রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) অসীম কুমার তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জিএম অসীম কুমার তালুকদার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা উপলক্ষে সাতটি বিশেষ ট্রেন চালুর সিদ্ধান্ত হয়েছে। সাতটি পৃথক রুটে ট্রেনগুলো চলবে। জয়পুরহাটের পাঁচবিবি, বগুড়ার সান্তাহার, নওগাঁর রানীনগর, নাটোর, চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর, সিরাজগঞ্জ, রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী থেকে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে ট্রেনগুলো ছাড়বে।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগের এমপি শেখ হেলালের আবেদনের প্রেক্ষিতে মন্ত্রনালয় এ সিদ্ধান্ত জানায়। আমরা সেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে কাজ করছি। আশা করি, বেলা ১২টা থেকে সোয়া একটার মধ্যেই ট্রেনগুলো রাজশাহীতে পৌঁছাবে। সাতটি বিশেষ ট্রেন চালুর ফলে রুটিন মাফিক চলা ট্রেনে সিডিউল বিপর্যয় দেখা দিতে পারে বলেও আশঙ্কা রয়েছে।

এদিকে জনসভাস্থল পরিদর্শনে এসে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, যদিও এই মাদরাসা মাঠ জনসভাস্থল, কিন্তু পুরো রাজশাহী শহর লোকে লোকারণ্য হবে। যেভাবে মানুষের উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে, কোনোভাবেই এ মাঠে জায়গা দেওয়া সম্ভব নয়। গত ১৪ বছরে এই রাজশাহী শহর বদলে গেছে।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, আওয়ামী লীগের স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলবার যে পরিকল্পনা সেটি মানুষ শুনতে চায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ করতে চেয়েছিলেন, তা হয়ে গেছে। আমরা সুফল পাচ্ছি। এখন তিনি তরুণদের নিয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে চান, সেটাও হবে। মাঠ শুধু নয়, মাঠের বাইরেও প্রচুর মানুষ থাকবে। আমরা কমপক্ষে পাঁচ থেকে সাত লাখ মানুষের সমাগম আশা করছি।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন বলেন, রাজশাহীর জনগণ তাদের প্রাণের নেত্রীকে দেখার জন্য অপেক্ষা করছেন। প্রতিদিন প্রতি মুহূর্তে তারা সময় গুণছেন, কখন জনগণের নেত্রী সফল প্রধানমন্ত্রী রাজশাহী আসবেন? প্রস্তুতি পর্ব সব শেষ, জনগণ অধীর আগ্রহে বসে আছে তাদের প্রিয় নেত্রীকে দেখার জন্য, প্রিয় নেত্রীর মুখ দিয়ে দুটি কথা শোনার জন্য। যেটি তাদের কাছে অনুপ্রেরণা ও শক্তি হবে আগামী দিনের নৌকার বিজয়ের ক্ষেত্রে।

এছাড়াও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে জনসভাস্থল ঐতিহাসিক মাদরাসা ময়দান ও সংলগ্ন এলাকায় সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর পাশপাশি পুরো নগরীতে তিন হাজার পুলিশ মোতায়েন করবে বলে জানিয়েছে মহানগর পুলিশ (আরএমপি)। এর আগে, আরএমপির এক প্রজ্ঞাপনে গত ২৭ জানুয়ারি সকাল ৬টা থেকে ৩০ জানুয়ারি সকাল ৬টা পর্যন্ত শহরে পূর্বানুমতি ছাড়া সব ধরনের আগ্নেয়াস্ত্র, বিস্ফোরক, পটকা এবং উড়ন্ত ড্রোন বহন, ব্যবহার, ধারণ এবং বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

  নাসিক নির্বাচন

;

যশোরে বিষাক্ত মদপানে ৩ জনের মৃত্যু



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যশোরে বিষাক্ত মদ পান করে গত ৭২ ঘণ্টায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। একই ঘটনায় আরো সাতজন অসুস্থ হয়ে যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

যশোর জেনারেল হাসপাতাল সূত্র জানায়, গত ২৫ ডিসেম্বর সদর উপজেলার আবাদ কচুয়া গ্রামে মকের আলীর মোল্লার ছেলে কাসেম মোল্লা (৫৫), একই গ্রামের হামিদের ছেলে নুর ইসলাম (৪৫) ও শাহাজানের ছেলে জাকির হোসেন (২৮) বিষাক্ত মদপানে গুরুতর অসুস্থ হন। তারা যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সময় মদ পানের কথা গোপন রাখেন।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় একদিন পর রাতে মারা যান কাসেম মোল্লা। এরপর ২৭ ডিসেম্বর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান নুর ইসলাম ও জাকির হোসেন। সূত্র বলছে, গত ২৫ ডিসেম্বর রাতে সদরের সীতারামপুর গ্রামের বালুর কাছে মদ সেবন করেন অন্তত ২৪ জন। যারা সবাই কমবেশি অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তার মধ্যে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন একই গ্রামের রিপন, আনোয়ার, বাবলু, কালাম ও নজরুল।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আহমেদ তারেক শামস বলেন, দুইজনের লাশ পরিবার নিয়ে গেছে। একটি লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে বিস্তারিত জানা যাবে।

যশোরে জেলা প্রশাসক বলছেন, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম বলেন, পুলিশ বিষয়টি গভীরভাবে খতিয়ে দেখছে।

যশোর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ডিডি হুমায়ুন কবীর খন্দকার বলেন, এরকম ঘটনা আমার জানা নেই। আপনি বলছেন বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখা হবে। যশোরে জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক ঘটনা। তদন্ত টিম গঠন করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জড়িতদের ছাড় দেওয়া হবে না।

  নাসিক নির্বাচন

;