নাসিক নির্বাচন: নগরসেবক পেতে ‘গোলযোগ’ চান না জনগণ

  নাসিক নির্বাচন



জুয়েল মিয়া, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নারায়ণগঞ্জ
নাসিক নির্বাচন: নগরসেবক পেতে ‘গোলযোগ’ চান না জনগণ

নাসিক নির্বাচন: নগরসেবক পেতে ‘গোলযোগ’ চান না জনগণ

  • Font increase
  • Font Decrease

শেষ হয়েছে নির্বাচনী প্রচারণা। রাত পোহালেই ভোটের লড়াই। এই ভোটে শেষ পর্যন্ত কী হয় তা দেখানোর জন্য মুখিয়ে আছে ভোটার ও প্রার্থীরা। কে জিতবে তা নিয়ে চলছে হিসাব-নিকাশ। কিন্তু নির্বাচনে বেশিভাগ ভোটারই মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীকে এগিয়ে রাখছেন।

তারা বলছেন, এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী এবং স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকারের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আইভীই জিতবে।

নির্বাচন নিয়ে কথা হয় ১৮নং ওয়ার্ডের এক বৃদ্ধার সাথে (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক)। তিনি বলেন, আইভী লোক হিসেবে ‘একশতে একশ’, কিন্তু নৌকাই তার সমস্যা। মানুষ তারে (আইভী) পছন্দ করে কিন্তু নৌকাকে অনেকেই পছন্দ করে না। এই কারণে ভোট কম পাইবো। কিন্তু আমি ভোট আইভীকেই দেমু।

কথা হয় নিতাইগঞ্জ এলাকার চায়ের দোকানদার মো. মোবারকের সঙ্গে। তিনি বলেন, নির্বাচনে আইভীই জিতবো। কিন্তু সুষ্ঠু নির্বাচন হবে কিনা তা বলা মুশকিল।

শহরের প্রাণ কেন্দ্র চাষাঢ়ায় কথা হয় কলেজ ছাত্র নাঈমের সাথে। তিনি বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন হবে। আর আমরা নিরপেক্ষ নির্বাচনের প্রত্যাশা করছি। এখন পর্যন্ত সেই পরিবেশও বিরাজ করছে। তবে এই পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকবে কিনা তা বলা যায় না।

চাকরিজীবী সজল বলেন, ভোটে নৌকাই জিতবে। আর সুষ্ঠু নির্বাচনও হবে। কারণ প্রচারণার এত আলোচনা-সমালোচনার মধ্যেও এখন পর্যন্ত কোন অঘটন ঘটেনি নারায়ণগঞ্জে। তাই আমরা আশা করি সুষ্টু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে।

শহরের গলাচিপা এলাকায় দেখা হয় নুরজাহান বেগমের সাথে, কথায় হয় নির্বাচন নিয়ে। তিনি বলেন, ‘নির্বাচন ভালো হবে। নৌকা ও হাতি এই দুইটাই প্রচার করছে। দুইজনই ভালো ভোট পাবে। তবে আল্লাহ ভালো জানে কে জিতবো। কিন্তু আইভী খুব ভালা মানুষ।’

নয়ামাটির এক হুসিয়ারি ব্যবসায়ী (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) বলেন, হাতি মার্কায় ভোট দেমু। নৌকায় দেমু না। কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, নৌকায় ভোট দিতে আপত্তি তার। নৌকা মানেই আওয়ামী লীগ আর আওয়ামী লীগ সরকারের কর্মকাণ্ড ভালো লাগে না বলেও জানান তিনি।

পথচারী সুমন বলেন, যানজট আর হকারদের কারণে রাস্তায় হাঁটাই মুশকিল। এত বছর ক্ষমতায় থেকেও তার কোন সমাধান করতে পারে নাই। নতুন কাউকে দরকার। এত বছর তো কাজ করছে। এখন নতুন কাউকে সুযোগ দিয়ে দেখা দরকার সে কি করে।

বিএনপির এক সমর্থক (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকাকালীন ভোটও দিতে পারি না! আমরা আমাদের ভোটের অধিকার ফিরে পেতে চাই। জনগণ যাকে খুশি তাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করবে, সরকার না। হার জিত থাকবেই আমরা চাই সুষ্টু নির্বাচন।

‘ভোটই দিতে যামু না’ এমন মন্তব্য করেন আরেক ভোটার। তিনি বলেন, ভোট দিতে গেলে বলে ভোট হয়ে গেছে। গত জাতীয় নির্বাচনে ভোটই দিতে পারলাম না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের এক সমর্থন বলেন, আওয়ামী লীগ করি নৌকাই ভোট দেমু। আইভীরে পছন্দ নাই করতে পারি কিন্তু আওয়ামী লীগ তো। কিন্তু এবার আইভী ও তৈমুরের মধ্যে ভালো প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে।

গার্মেন্টস কর্মী লিপি বেগম বলেন, আইভী আপা অনেক উন্নয়ন করছে। তারেই আবার ভোট দেমু।

হকার্স মার্কেটের হকার হামিদ বলেন, কে হারবো কে জিতবো এটা পরের বিষয়। নির্বাচনে যেন কোন গেঞ্জাম (ঝামেলা) না হয়। এটাই হচ্ছে বড় বিষয়।

উল্লেখ্য, আগামীকাল রোববার (১৬ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ইভিএমে ভোট চলবে। একজন মেয়র, ৯ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর এবং ২৭টি ওয়ার্ডের জন্য একজন করে কাউন্সিলর বেছে নিতে ভোট দেবে ৫ লাখ ১৭ হাজারেরও বেশি নারায়ণগঞ্জবাসী। মেয়র পদে লড়ছেন সাতজন। এ ছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৪৮ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৪ জন প্রতিদ্বন্দ্বী রয়েছেন।

  নাসিক নির্বাচন

নির্বাচন কমিশন গঠনের আইনের খসড়া সংসদে উত্থাপন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য জাতীয় সংসদে বিল বা আইনের খসড়া উত্থাপন করা হয়েছে।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) আইনমন্ত্রী আনিসুল হক খসড়া আইনটি সংসদে উত্থাপন করেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ আইন, ২০২২’ নামে খসড়া আইনটির মাধ্যমে সার্চ কমিটির মাধ্যমে এর আগে গঠিত সব নির্বাচন কমিশনের বৈধতাও দেওয়া হবে।

খসড়া আইনে সার্চ কমিটির (অনুসন্ধান কমিটি) কাজ সম্পর্কে বলা হয়েছে, এ কমিটি স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতার নীতি অনুসরণ করে দায়িত্ব পালন করবে। আইনে বেঁধে দেওয়া যোগ্যতা, অযোগ্যতা অভিজ্ঞতা, দক্ষতা ও সুনাম বিবেচনা করে সিইসি ও নির্বাচন কমিশনার পদে নিয়োগের জন্য রাষ্ট্রপতির কাছে সুপারিশ করবে।

এর আগে, গত সোমবার (১৭ জানুয়ারি) নির্বাচন কমিশন গঠন আইনের খসড়া মন্ত্রিসভায় অনুমোদন দেওয়া হয়। সেদিন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগদানের জন্য একটি অনুসন্ধান কমিটি গঠন করা হবে। সেটা রাষ্ট্রপতির অনুমোদন নিয়ে।

  নাসিক নির্বাচন

;

কেএমপি’র ৩ কর্মকর্তা পেলেন পিপিএম সেবা পদক



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, খুলনা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ’র (কেএমপি) চৌকস, দক্ষ, মেধাবী ও মানবিক ৩ পুলিশ কর্মকর্তা পেলেন পিপিএম-সেবা পদক।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) কেএমপি সূত্র এ তথ্য জানায়।

কেএমপি সূত্র জানায়, ২০২০ ও ২০২১ সালে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশে চাঞ্চল্যকর মামলা সমূহের রহস্য উদঘাটন, কৃতিত্বপূর্ণ, সাহসীকতা এবং বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ তাদেরকে “পিপিএম-সেবা” পদকে ভূষিত করা হয়েছে।

পদকপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা হলেন, কেএমপি’র অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) সোনালী সেন, বিশেষ পুলিশ সুপার রাশিদা বেগম এবং এসআই (নি:) মোহাম্মদ আবু সাঈদ।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালে জনাব সোনালী সেন, অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ), কেএমপি, খুলনা চাঞ্চল্যকর মামলাসমূহের রহস্য উদঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা, সেবামূলক কাজ এবং শৃঙ্খলামূলক আচরণের মাধ্যমে প্রশংসনীয় অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ “পিপিএম-সেবা” পদকে ভূষিত হয়েছে।

২০২০ সালে জনাব রাশিদা বেগম, বিশেষ পুলিশ সুপার, সিটি স্পেশাল ব্রাঞ্চ, কেএমপি, খুলনা কৃতিত্বপূর্ণ, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা এবং দক্ষতার সহিত বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে প্রশংসনীয় অবদান রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ “পিপিএম-সেবা” পুরস্কারে ভূষিত হয়েছে। তিনি কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাব রোধে প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন, শ্রমিক আন্দোলনকালীন ও সার্বক্ষণিক মহানগরীর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখায় ভূমিকা, ভিআইপি/ভিআইপি, বিদেশীদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণসহ নাগরিক সেবা প্রদানে দায়িত্ব পালনকালে পেশাদারিত্বের যে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে এটি শুধু বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যদের জন্যই নয়, দেশের নারী সমাজের কাছেও অনুসরণীয়, অনুকরণীয় ও অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে চিরকাল।

২০২০ সালে জনাব মোহাম্মদ আবু সাঈদ, এসআই(নি:), খুলনা থানা, কেএমপি, খুলনা এর কর্তব্যপরায়নতা, নিষ্ঠা, সততা, আন্তরিকতা, বিচক্ষণতা, সাহসীকতা এবং বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ তাকে “পিপিএম-সেবা” পদকে ভূষিত করা হয়েছে।

  নাসিক নির্বাচন

;

সিরাজগঞ্জে তিন এমপি করোনায় আক্রান্ত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সিরাজগঞ্জে তিন এমপি করোনায় আক্রান্ত

সিরাজগঞ্জে তিন এমপি করোনায় আক্রান্ত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিরাজগঞ্জের তিনজন সংসদ সদস্য (এমপি) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়াও একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও উপজেলা চেয়ারম্যান এবং জেলা যুবলীগের সভাপতিও আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে সবাই দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

আক্রান্ত ব্যক্তিরা হলেন, সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয়, সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না, সিরাজগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. আব্দুল আজিজ, কাজিপুর উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান সিরাজী, রায়গঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৃপ্তি কনা মন্ডল এবং জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ ইউসুফ জুয়েল। 

শনিবার বিকেলে নিজের ফেসবুক পেজে দ্বিতীয়বারের মতো করোনা আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি জানিয়ে নিজের সুস্থতা কামনা করে দোয়া চেয়েছেন সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্নার এপিএস একরামুল হক স্বপন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, ২০২১ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি টিকার প্রথম ডোজ গ্রহণের মাধ্যমে সিরাজগঞ্জে টিকা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সিরাজগঞ্জ-২ আসনের এমপি অধ্যাপক হাবিবে মিল্লাত মুন্না। এরপর ৮ এপ্রিল জাতীয় সংসদ ক্লিনিক থেকে দ্বিতীয় ডোজ ও ১২ জানুয়ারি টিকার বুস্টার ডোজ গ্রহণ করেন তিনি।

সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয় বলেন, দুইটি করোনা টিকা এবং বুস্টার ডোজ গ্রহণ করার পরও ১৯ জানুয়ারি তৃতীয়বারের মতো তার শরীরে করোনা ধরা পড়েছে। ঠান্ডা ছাড়া তেমন কোন সমস্যা হচ্ছে না। বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি।

সিরাজগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. আব্দুল আজিজ সরকার বলেন, দুইটি টিকা নেওয়ার পর ৭ দিন আগে শরীরে করোনা ধরা পড়েছে। সর্দি-কাশি আছে, কিন্তু তেমন সমস্যা হচ্ছে না। বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি। 

রায়গঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তৃপ্তি কনা মন্ডল বলেন, দুইটি টিকা গ্রহণ করার পরও ১৮ জানুয়ারি করোনা ধরা পড়েছে। কাশি আছে, ডাক্তারের পরামর্শে বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি। 

অপর দিকে দুই টিকা গ্রহণের পরও ১৮ জানুয়ারি কাজিপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান সিরাজী এবং ১৭ জানুয়ারি জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ ইউসুফ জুয়েলের শরীরে করোনা ধরা পড়ে। এদেরও হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়নি। বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন তারা।

  নাসিক নির্বাচন

;

হাতিয়ায় ১৪০ মণ জাটকা জব্দ



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী 
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার মেঘনা নদীর মৌলভীর চর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৪০ মণ জাটকা ইলিশ জব্দ করেছে কোস্টগার্ড। 

শনিবার রাতে জব্দকৃত মাছগুলো ২০টি এতিমখানার শিক্ষার্থীসহ সহশ্রাধিক গরীব মানুষের মধ্যে বিতরণ করা হয়। 

এর আগে শনিবার সন্ধ্যার সময় অভিযান করে ঢাকার মোকামে নিয়ে যাওয়ার সময় মেঘনা নদী থেকে জব্দ করা হয় এসব জাটকা মাছ।

কোস্টগার্ড হাতিয়ার স্টেশন কমান্ডার লে. ইফতেখারুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার মৌলভীর চর এলাকায় অভিযান চালায় বিসিজি স্টেশান কোস্টগার্ড হাতিয়া।

অভিযান চালিয়ে মৌলভীর চরের উত্তর পাশে মেঘনা নদী থেকে দুটি ইঞ্জিন চালিত ট্রলারে থাকা ১৪টি ঝুঁড়ি থেকে ১৪০ মণ জাটকা মাছ জব্দ করা হয় । পরবর্তীতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পরামর্শ অনুযায়ী এবং মৎস্য অফিসের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে জাটকা মাছ গুলো এতিমখানা ও গরিব দুঃখীদের মাঝে বিতরণ করা হয়। যার বাজার মুল্য প্রায় ১৭লাখ টাকা।

তিনি আরও বলেন, জব্দকৃত এসব জাটকা মাছ ব্যাবসায়ীরা বিক্রির উদ্দেশ্যে ভোলা জেলার মনপুরা উপজেলার হাজিরহাঁট ঘাট থেকে নদী পার হয়ে হাতিয়ার টাংকির ঘাট নিয়ে যাচ্ছিলেন।

  নাসিক নির্বাচন

;