ঘূর্ণিঝড় বুলবুল: সুন্দরবনে রাসমেলা বন্ধ

  ঘূর্ণিঝড় বুলবুল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, খুলনা
বৈরী আবহাওয়ায় রাসমেলা বন্ধ ঘোষণা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

বৈরী আবহাওয়ায় রাসমেলা বন্ধ ঘোষণা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল-এর প্রভাবে সৃষ্ট বৈরী আবহাওয়ার কারণে সুন্দরবনের দুবলার চরে এবারের ঐতিহ্যবাহী রাসমেলা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

শুক্রবার (৮ নভেম্বর) দুপুরে বাগেরহাট জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা শেষে গণমাধ্যম‌ে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবারের ন্যায় এ বছরের আগামী ১০ নভেম্বর থেকে ১২ নভেম্বর পর্যন্ত তিন দিনব্যাপী রাসমেলা অনুষ্ঠিত হওয়া কথা ছিল। ইতিমধ্য‌ে সুন্দরবনের দুবলারচরে রাসমেলাকে ঘিরে উপকূলীয় অঞ্চলে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। মেলায় যেতে পুণ্যার্থী ও দর্শনার্থীদের প্রস্তুতিও শুরু করেছিল সবাই। এ মেলায় যাওয়াকে কেন্দ্র করে লঞ্চ, ট্রলার, সাম্পান, জালি বোট, স্পিড বোট ভাড়াসহ বিভিন্ন প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু দুবলার চর রাস উৎসব জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে মানুষের নিরাপত্তা বিবেচনায় এ উৎসব বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 

রাস উৎসব উদযাপন কমিটি জানায়, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল-এর কারণে বড় ধরনের দুর্যোগের আশঙ্কায় এবারের রাস উৎসব বন্ধ ঘোষণা কর হয়েছে। তবে উৎসব না হলেও সংক্ষিপ্ত পরিসরে মন্দিরে পূজা ও ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান পালিত হবে।

এছাড়া দুর্যোগময় আবহাওয়ার কারণে সুন্দরবন বন বিভাগও উৎসবে যেতে পাস (অনুমতি) বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পাশাপাশি সুন্দরবন ও উপকূলে জেলেদেরও নিরাপদে ফিরে আসতে বলছে বন বিভাগ ও আবহাওয়া অধিদফতর।

সুন্দরবনের গভীরে দুবলার চরের আলোরকোলে শত বছর ধরে ঐতিহ্যবাহী এই লোক উৎসব অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। প্রতি বছর কার্তিক পূর্ণিমা তিথিতে এই উৎসব পালন করা হয়। রাস উৎসব ও পুণ্যস্নানকে ঘিরে প্রতিবছর অর্ধলক্ষাধিক তীর্থযাত্রী, দর্শনার্থী ও পর্যটক সুন্দরবনের বঙ্গোপসাগর তীরবর্তী দুবলার চরের আলোরকোলে জড়ো হয়।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ বলেন, ‘রাস উৎসব ছাড়াও সুন্দরবনের দুবলার বিভিন্ন চরে শুঁটকি মৌসুমকে ঘিরে কয়েক হাজার জেলে অবস্থান করছেন। সেখানে জেলেদের জন্য তিনটি সাইক্লোন শেল্টার আছে। ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার আগেই দুবলার চরের শুঁটকি পল্লীর জেলেদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া চেষ্টা চলছে। এজন্য কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনীর সহযোগিতা নেওয়া হবে। সতর্ক সংকেত বাড়লে উপকূলীয় লোকজনকে দ্রুত ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র ও নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নিতে সব ধরণের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।’

দুবলার চর রাস উৎসব জাতীয় কমিটির সহ-সভাপতি বাবুল সরদার গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, শুক্রবার সকাল থেকে বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। সুন্দরবনের দুবলার চরের আলোরকোলে ঐতিহ্যবাহী রাস উৎসবের এবারের আয়োজন দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে বন্ধ ঘোষণা করা হচ্ছে। তবে পূজাসহ ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান চলবে।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদের সভাপতিত্বে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির ওই সভায় পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায়, জেলার নয়টি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা, ফায়ার সার্ভিস, পানি উন্নয়ন বোর্ড, রেড ক্রিসেন্ট, লঞ্চ ও ট্রলার মালিক, সিপিপিসব বিভিন্ন শ্রেণিপেশার প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

আপনার মতামত লিখুন :

  ঘূর্ণিঝড় বুলবুল