কাকাকে অভিনন্দন জানাচ্ছি, উনার মেয়ে জিতেছে: আইভী

  নাসিক নির্বাচন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নারায়ণগঞ্জ
হ্যাটট্রিক জয়ের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে ব্রিফিংয়ে হাস্যোজ্জ্বল আইভী। ছবি: বার্তা২৪.কম

হ্যাটট্রিক জয়ের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে ব্রিফিংয়ে হাস্যোজ্জ্বল আইভী। ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে বেসরকারি ফলাফলে জয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, ‌‘আমি অবশ্যই আমার কাকা তৈমূর আলম খন্দকারকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করব।’

আইভী বলেন, ‘কাকা অনেক ভোট পেয়েছেন, তাকে অভিনন্দন জানাতে চাচ্ছি। আপনার মেয়ে জিতেছে। মেয়ে তো জিতবেই, বাবারা সব সময় মেয়েদের জিতিয়ে দেয়। তিনি যেহেতু আমার চাচা, তিনিও খুশি হয়েছে যে, চুনকার মেয়ে জিতেছে, উনারই মেয়ে জিতেছে।’

তিনি বলেন, ‘কাকা আগেও আমাকে অনেক সহযোগিতা করেছেন। আবার অনেক সময় অনেক সমালোচনা করেছেন, অনেক কথা বলেছেন। তবে আমি উনাকে সব সময় সম্মান করি, শ্রদ্ধা করি।’

রোববার (১৬ জানুয়ারি) রাতে বেসরকারি ফলাফলে জয় নিশ্চিতের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন সেলিনা হায়াৎ আইভী। এসময় তিনি এসব কথা বলেন।

নির্বাচনী প্রচারে তৈমূর আলম খন্দকার যেসব পরিকল্পনা তুলে ধরেছেন, সেগুলো বিবেচনায় নেওয়ার কথা উল্লেখ করে আইভী বলেন, ‘আমি উনার সঙ্গে কথা বলব, আগেও কথা হতো। তার উন্নয়ন পরিকল্পনার অনেক কিছুই আমার পরিকল্পনার মধ্যেও রয়েছে।’

সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, ‘আমি এ শহরেই থাকতে চাই। জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত মানুষের পাশে থাকতে চাই। জীবনের শেষ দিনটি পর্যন্ত মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। নারায়ণগঞ্জ মানুষের জন্য, নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য। তারা যেমন আমার বিপদে পাশে দাঁড়িয়েছেন, আমিও তাদের পাশে থাকতে চাই।’

তিনি বলেন, ‘কোনো ভয় ও শঙ্কা কাজ করেনি। আমার কনফিডেন্স দেখে অনেকে মনে করেছিলেন, আমি ওভার কনফিডেন্স। কনফিডেন্সে না থাকলে নেতাকর্মীরা মন মরা হয়ে যায়। আমি ছোটবেলা থেকেই দেখে আসছি। আব্বাও এ শহরে কাজ করেছেন। আমি জানতাম, তারা আমাকে বিমুখ করবে না। ভোট স্লো হয়েছে, হয়তো আরও ভোট পড়লে ব্যবধানটা আরও বড় হতো।’

তিনি বলেন, ‘আমি নির্বাচন কমিশনকে ধন্যবাদ দিতে চাই। তারা এত বেশি সক্রিয় ছিলেন, যার ফলে কোথাও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। আমি আপনাদের কাছে ঋণী। আমার জন্য দোয়া করবেন। যে প্রত্যাশা নিয়ে মানুষ ভোট দিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নৌকা দিয়েছে সেটা যেন পূরণ করতে পারি।’

সিটি করপোরেশনের উন্নয়নে এমপি শামীম ওসমানকে সঙ্গে রাখবেন কি না, এমন প্রশ্নে আইভী বলেন, ‘যে কেউ আমার সাথে উন্নয়নে অংশ নিতে পারেন। সবার কথাই আমি গ্রহণ করব। প্রত্যাশা অনেক বেশি। মানুষ যেই প্রত্যাশা রাখে, সেগুলো পূরণ করব। আর চ্যালেঞ্জ থাকবেই, আগেও মোকাবিলা করেছি, আগামীতেও করব।’

বেসরকারিভাবে ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী, আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী (নৌকা) পেয়েছে ১ লাখ ৬১ হাজার ২৭৩ ভোট। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বি বিএনপির অব্যাহতিপ্রাপ্ত নেতা তৈমূর আলম খন্দকার (হাতি) পেয়েছেন ৯২ হাজার ১৭১ ভোট।

নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, ভোট পড়েছে প্রায় ৫০ শতাংশ। সকাল থেকেই ভোটের পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন প্রার্থীরা। কোথাও সহিংসতার কোনো ঘটনা ঘটেনি।

  নাসিক নির্বাচন

‘গুণী হতে কোন বয়স লাগে না’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুষ্টিয়া
‘গুণী হতে কোন বয়স লাগে না’

‘গুণী হতে কোন বয়স লাগে না’

  • Font increase
  • Font Decrease

জাগ্রত গ্রুপের চেয়ারম্যান জাগ্রত মহানায়ক শিহাব রিফাত আলম বলেছেন, গুণী হতে কোন বয়স লাগে না। সমাজের জন্য কাজ করলেই কেবল গুণী হওয়া যায়। ‘যারা সমাজের জন্য, জাতির জন্য ও দেশের জন্য অবদান রাখেন, তাদের সম্মান করা, গুণিজনের সম্মান করাটাও আমি মনে করি আমাদের কর্তব্য।’ আজকের এই অনুষ্ঠানে অনেক গুণী ব্যক্তিদের গল্প শুনে আমার অনেক ভালো লাগছে।

শুক্রবার রাতে জেলা শিল্পকলা একাডেমি কনফারেন্স রুমে কুষ্টিয়া জাগ্রত সাহিত্য পরিষদের আয়োজনে 'সফল যারা কেমন তাঁরা' শীর্ষক আড্ডা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন।

তিনি বলেন, আমরা যদি গুণীজনদের খুঁজে বের করি, তাদের সম্মান দেখাই, তাহলে জাতিকেই সম্মান দেখানো হয় এবং তা জাতিকে সমৃদ্ধ করে। গুণীজনরা তাদের কাজের স্বীকৃতি পেলে ভালো থেকে আরও ভালো করেন, অন্যদেরও উৎসাহ বাড়ে।’

তিনি বলেন, মানুষের জন্ম হয় সফলতার জন্য, ব্যর্থতার জন্য নয়, তাই আমি মনে করি গুনি তো তারাই, যে পৃথিবী জয় করেছে সে কখনো কোন অযুহাত দেখায়নি। যোগ্য ব্যক্তিকে যোগ্য সম্মান করতে না পারলে সমাজে গুণী ব্যক্তির সৃষ্টি হয় না। মানুষকে সম্মান করতে পারলেই কেবল সম্মান পাওয়া যায়। তাই মানুষের প্রতি যথাযথ সম্মান ও শ্রদ্ধাবোধ দেখাতেও অনুরোধ জানানো হয়।

তিনি আরও বলেন, আমি মনে করি বাংলাদেশটা আমার। আমি বাংলাদেশকে নিয়ে গর্ব করি। ‘আপনারা আজকে এখানে যারা বিভিন্ন ক্ষেত্রে পুরস্কারপ্রাপ্ত, তাদের আমি আন্তরিক অভিনন্দন জানাই। কারণ আপনারা সবাই নিজ নিজ ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রেখে গেছেন। শিক্ষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি, প্রতিটি ক্ষেত্রেই আপনাদের অবদান রয়েছে।’

জাগ্রত গ্রুপের চেয়ারম্যান জাগ্রত মহানায়ক শিহাব রিফাত আলম আরও বলেন, ‘এ দেশে চিন্তাবিদ, সাধক, দার্শনিকের জন্ম হয়েছে। গায়ক, কবিদের জন্ম হয়েছে; লোকসাহিত্যের জায়গা তৈরি হয়েছে। সৃজনশীল প্রতিভাব বিকাশে কাজ করছে জাগ্রত সাহিত্য পরিষদ। তাছাড়া ব্যবসায়ীদের কল্যাণে জাগ্রত ব্যবসায়ীসহ মানবিক কর্মকাণ্ড, রক্তদান কর্মসূচি, অনাহারীদের খাবার বিতরণ সহ অলাভজনক ৮ টি সেবার কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা হচ্ছে। আমরা আমাদের সীমিত সার্মথ্য দিয়ে কবি সাহিত্যিকদের সৃষ্টিকর্ম জাতির সামনে তুলে ধরতে আমরা নিরলসভাবে কাজ করে চলেছি। আলোকিত দেশ গড়তে সবসময় আমরা এই জাগ্রত কাজ করে যাবে।


নজরুল একাডেমি কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি ও কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি দৈনিক বাংলাদেশ বার্তা পত্রিকার আবদুর রশীদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক এসএম জামাল এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম, শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার সুজন রহমান, জাগ্রত সাহিত্য পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও ভালোবাসার কুষ্টিয়ার চেয়ারম্যান হাসান টুটুল, সুইমিং ফেডারেশন এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম, অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা লেখক ও কলামিষ্ট মো: শহীদুল্লাহ, জাগ্রত ব্যবসায়ী জনতা কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম প্রচার সম্পাদক রাসেল মিয়া, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম, জাগ্রত সাহিত্য পরিষদের প্রচার সম্পাদক মেজবাহ উল আলম নাসিম প্রমুখ।

আড্ডায় অংশ নিয়ে জীবনের গল্প বলেন, রক্তযোদ্ধা সাদিক হাসান রহিদ, তিন প্রজন্মের নাট্যভিনেতা শাহীন সরকার, সফল ফ্রিল্যান্সার অনিক মাহমুদ, জেলা শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার সুজন রহমান, দেশসেরা সাঁতারু আমীরুল ইসলাম, পশুপাখি প্রেমী শাহাবুদ্দিন মিলন, ,জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নাদিরা খানম, জেলার শ্রেষ্ঠ জয়ীতা নারী উদ্যোক্তা ঝর্ণা বেগম, ক্যান্সার সোসাইটির ফরিদুল ইসলাম, গনহত্যা বিষয়ক গবেষক ইমাম মেহেদী ও সমাজকর্মী কারশেদ আলম প্রমুখ।

অনুষ্ঠান শেষে শিক্ষা, সাহিত্যে, সমাজসেবাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখায় ১৫ জনকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

  নাসিক নির্বাচন

;

স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক স্বামী গ্রেফতার



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক স্বামী গ্রেফতার

স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক স্বামী গ্রেফতার

  • Font increase
  • Font Decrease

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় স্ত্রী হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার মো.মহিন উদ্দিন ওরফে মহিন (৪৪) উপজেলার পূর্ব অনন্তপুর গ্রামের কাজী বাড়ির গোলাপ রহমান ওরফে চৌধুরী মিয়ার ছেলে।

শনিবার (২৮ জানুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন নোয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) মো.শহীদুল ইসলাম। এর আগে, গতকাল শুক্রবার রাত ৮টার দিকে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, স্ত্রী প্রথমা আক্তার পলি হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মহিন। গতকাল শুক্রবার রাতে গোপনে বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গত বছরের ২৭ নভেম্বর আদালত স্ত্রীকে হত্যার দায়ে তাকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন। এরপর থেকে সে পলাতক ছিল।

এসপি আরো জানান, গ্রেফতার আসামিকে শনিবার দুপুরের দিকে নোয়াখালী চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হবে।

  নাসিক নির্বাচন

;

স্মার্ট বাংলাদেশ হবে সমৃদ্ধশালী, আত্মনির্ভরশীল রাষ্ট্র: নাছিম



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
স্মার্ট বাংলাদেশ হবে সমৃদ্ধশালী, আত্মনির্ভরশীল রাষ্ট্র: নাছিম

স্মার্ট বাংলাদেশ হবে সমৃদ্ধশালী, আত্মনির্ভরশীল রাষ্ট্র: নাছিম

  • Font increase
  • Font Decrease

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, আজকে আমরা স্মার্ট বাংলাদেশের কথা বলি। স্মার্ট বাংলাদেশ হবে সমৃদ্ধশালী, আত্মনির্ভরশীল রাষ্ট্র ও বৈষম্যহীন একটি জাতি। সেটা হবে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। স্মার্ট বাংলাদেশে ধনী গরিবের বৈষম্য থাকবে না। এই লক্ষ্য নিয়েই আমাদের সরকার কাজ করে যাচ্ছে। জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করার মধ্য দিয়ে আমরা জাতির পিতার আদর্শ বাস্তবায়ন করে মানুষের স্বপ্ন পূরণ করব।

শনিবার (২৮ জানুয়ারি) অস্ট্রেলিয়ার ওয়েস্টার্ন সিডনি ইউনিভার্সিটির প্যারামাটা সাউথ ক্যাম্পাসে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, জাতির পিতার লক্ষ্যই ছিল বাংলাদেশের মানুষকে অর্থনৈতিক মুক্তি দেওয়া এবং বাংলাদেশকে বিশ্বে মর্যাদা-শীল রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা। ঘাতকের দলেরা আমাদের মহান নেতাকে সম্বৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার আগেই নির্মমভাবে হত্যা করে। ঘাতকেরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধ্বংস করতে চেয়েছিল। কিন্তু তারা তা পারেনি। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্ব দিয়ে দেশের গণতন্ত্রকে উদ্ধার করেছেন। ঘাতকদের বিচার কার্যকর করার মধ্য দিয়ে তিনি দেশকে এখন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ার পথে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে গিয়েছেন।

তিনি বলেন, যতবারই আমরা জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করি ঠিক ততবারই আমরা অনুপ্রাণিত হই। নতুন করে প্রস্তুত হয়ে জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার জন্য আমরা শক্তি পাই। জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা আমাদের মধ্যে অনুপ্রেরণা যোগায়।

আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশবিরোধী অশুভ শক্তি বিএনপি-জামাত বাংলাদেশ বিরোধী রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। এই অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে আমাদের সব সময় লড়াই করতে হবে। জাতির পিতার আদর্শ বক্ষে ধারণ ও পালন করে এদের মোকাবেলা করতে হবে। এরা সুযোগ পেলেই বাংলাদেশকে ধ্বংস করে দেবে। এরা বাংলাদেশের অস্তিত্ব ও গৌরব মুছে ফেলতে চায়।

অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থানরত বাংলাদেশীদের লক্ষ্য করে তিনি বলেন, আপনারা আপনাদের শিক্ষা, দক্ষতা ও মেধা দিয়ে বাংলাদেশ ও বাঙালি জাতির জন্য কাজ করবেন এটাই প্রত্যাশা। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকেরাই পারবে দেশের উন্নতি করতে। অনেক বাধা আমাদের সামনে এসেছে। আমরা একত্রিত থেকে সেটা মোকাবেলা করেছি। ঘুরে দাঁড়িয়েছি। আমাদের রোখার শক্তি কারো নেই। কোন অপশক্তি আমাদের রুখতে পারেনি। যেমন মহান মুক্তিযুদ্ধে আমরা সফল হয়েছি, তেমনি সামরিক জান্তা সরকার, সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধেও আমরা লড়াই সংগ্রাম করে বিজয়ী হয়েছি। আমাদের ঐতিহ্য আমরাই রক্ষা করব।

এসময় বাহাউদ্দিন নাছিমের সহধর্মিণী ডা. সুলতানা শামীমা চৌধুরী রিতা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

জাতির পিতার ভাস্কর্যে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ অস্ট্রেলিয়ার সভাপতি ড. সিরাজুল হক, কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন অস্ট্রেলিয়ার সভাপতি কৃষিবিদ ড. আব্দুস সাদেক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ অস্ট্রেলিয়ার সহ-সভাপতি মুস্তাফিজুর রহমান রানা, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী সিকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক মোসলেউর রহমান খুশবো, শাহ কামাল,বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সিডনি, অস্ট্রেলিয়ার সহ-সভাপতি লাল্টু চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আজাদ, সেচ্ছাসেবক লীগ অস্ট্রেলিয়ার সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, প্রাক্তন ছাত্রলীগ নেতা আবু তারেক সহ অস্ট্রেলিয়ায় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের প্রমুখ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ অস্ট্রেলিয়ার উদ্যোগে সভাপতি সিরাজুল হক, সাধারণ সম্পাদক প্রদ্যুৎ সিং চুন্নু ও ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ওসেন গভর্নেসের পরিচালক ড. দাউদ হাসানের অক্লান্ত পরিশ্রমে সিডনির ওয়েস্টার্ন সিডনি বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আবক্ষ মূর্তি উম্মোচন করা হয়।

  নাসিক নির্বাচন

;

ময়মনসিংহে ছাত্রলীগ-যুবলীগের গোলাগুলি, গুলিবিদ্ধ ২



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ময়মনসিংহ
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহ মহানগর ছাত্রলীগ ও যু্বলীগের মধ্যে ‘গোলাগুলি’ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় দুই জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টার দিকে মহানগরীর বাউন্ডারী রোড এলাকায় এই ঘটনা ঘটে ।

গুলিবিদ্ধরা হলেন- মহানগরীর নতুন বাজার এলাকার রাজ্জাক মিয়ার ছেলে শাকিল (২৫) ও নওমহল এলাকার জাহিদ হাসানের ছেলে রিমন।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের উপ-পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম বলেন, গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুই জনকে জরুরি বিভাগে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। আহতরা হাসপাতালের ৬ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় জানায়, ঘটনার সময় রাত সাড়ে ৮টার দিকে নগরীর বাউন্ডারী রোড এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মহানগর যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক রাসেল পাঠান গ্রুপ এবং মহানগর ছাত্রলীগের আহবায়ক নওসেল আহম্মেদ অনি গ্রুপের মাঝে গোলাগুলি ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং আহত দুই জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

মহানগর ছাত্রলীগের আহবায়ক নওসেল আহম্মেদ অনি বলেন, আমার সঙ্গে বা মহানগর ছাত্রলীগের কোন নেতাকর্মীর সাথে কোন ঘটনা ঘটেছে বলে আমার জানা নেই।

মহানগর যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক রাসেল পাঠান বলেন, মহানগর যুবলীগ নেতা জয়ের সঙ্গে আগামী শনিবারে জমি নিয়ে দরবার হওয়ার কথা ছিল। এসব বিষয় নিয়ে কথা হচ্ছিল। এসময় মহানগর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক অনি ৫০ থেকে ৬০ জনকে নিয়ে এসে জয়ের ওপর হামলা করে। পরে জয় ও আমাদের ১০০ থেকে ১৫০ জন তাদের ধাওয়া করে ও পাথর মারার ঘটনা ঘটে। তবে, গোলাগুলির কোন ঘটনা ঘটেনি।

এবিষয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি (তদন্ত) ফারুক হোসেন বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এবং বর্তমানে পরিস্থিত স্বাভাবিক আছে। এই ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন আছে বলেও জানান তিনি।

  নাসিক নির্বাচন

;